আপনি পড়ছেন

কাতার বিশ্বকাপ শুরু থেকেই অঘটনের পসরা সাজিয়েছে। এবার অঘটনের শিকার হলো শিরোপা প্রত্যাশী ফ্রান্স। বুধবার রাতে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের ১-০ গোলে হারিয়ে দিলো তিউনিশিয়া। কিন্তু জিতেও লাভ হলো না আফ্রিকান দলটির। বিদায় যে অবধারিত হয়ে আছে তাদের। বিশ্বকাপের ইতিহাসে গ্রুপপর্বেই আটকে থাকল তারা।

tunisia beat franceঅঘটনের শিকার ফ্রান্স, তবু বিদায় তিউনিশিয়ার

প্রথম দুই ম্যাচেই হেরেছে তিউনিশিয়া। বিপরীতে শুরুর দুই ম্যাচ জিতেছে ফ্রান্স। খুব স্বাভাবিকভাবেই ‘ডি’ গ্রুপের শীর্ষ ও তলানির দলের লড়াইটা ছিল স্রেফ নিয়মরক্ষার। এই ম্যাচে তিউনিশিয়ার হারানোর কিছু ছিল না। তবে পাওয়ার ছিল। নিজেদের শেষ ম্যাচে ফ্রান্সকে শিকার বানানোটাই ছিল তাদের বিদায়ী অর্ঘ্য।

শেষ ষোলোর টিকিট আগেই নিশ্চিত হয়েছে ফ্রান্সের। তৃতীয় ম্যাচে তাই শুরুর একাদশে অনিয়মিত কয়েকজন খেলোয়াড়কে রাখেন ফরাসি কোচ দিদিয়ের দেশাম। সেটাই কাল হয়ে দাঁড়াল; সুযোগ কাজে লাগাল তিউনিসিয়া। দ্বিতীার্ধে কিলিয়ান এমবাপ্পে ও অ্যান্তনিও গ্রিজম্যানকে নামালেও তারা হার ঠেকাতে পারেননি ফ্রান্সের।

অবশ্য অন্তত একটা পয়েন্ট পেতে পারতো ফ্রান্স। ম্য্যাচের শেষ মুহূর্তে তাদের একটি গোল বাতিল হয়ে যায় অফসাইডের কারণে। ভিএআরের বলি হয় গ্রিজম্যানের দারুণ গোলটা। ফরাসিদের গোল বাতিল হতেই উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়ে তিউনিসিয়া। ফরাসিদের বিপক্ষে বিশ্বকাপে এটাই প্রথম জয় তাদের। 

ম্যাচের শুরু থেকেই ফ্রান্সের সঙ্গে দাঁতে দাঁত চেপে লড়াই করে আফ্রিকান জায়ান্টরা। খেলার ধারার বিপরীতে দ্বিতীয়ার্ধে লিড পেয়ে যায় তিউনিশিয়া। ৫৮ মিনিটে লেদুনির কাছ থেকে বল পেয়ে আফ্রিকানদের উচ্ছ্বাসে ভাসান খাজরি। গোলটার আর শোধ দিতে পারেনি ফরাসিরা। এই গোলটিই ম্যাচের ভাগ্য তিউনিশিয়ার বিপক্ষে নির্ধারণ করে দেয়। এবারের বিশ্বকাপে এটাই প্রথম জয় তাদের।

এমন ঐতিহাসিক একটা জয়ের পরও টুর্নামেন্টে টিকে থাকতে পারল না তিউনিসিয়া। তিন ম্যাচে চার পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তৃতীয় সেরা দল হয়েছে তারা। তবে অঘটনের শিকার হওয়ার পরও গ্রুপসেরা হিসেবে নক আউট পর্ব শুরু করবে ফ্রান্স। তিন ম্যাচের ছয় পয়েন্ট তাদের। ফ্রান্সের সমান ছয় পয়েন্ট অস্ট্রেলিয়ারও। গোলগড়ে পিছিয়ে থাকায় গ্রুপ রানার্সআপ হয়েছে ক্যাঙ্গারুর দেশটি।

গ্রুপের অন্য ম্যাচেও হয়েছে অঘটন। যেখানে ইউরোপিয়ান শক্তি ডেনমার্ককে ১-০ গোলে হারিয়ে দেয় অস্ট্রেলিয়া। তিন ম্যাচে ডেনিশদের পয়েন্ট মোটে এক। টেবিলের তলানিতে থেকেই বিদায় নিলেন কেজায়ের-এরিকসেনরা। প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে ফ্রান্স লড়বে ‘সি’ গ্রুপের রানার্সআপ দলের সঙ্গে। অস্ট্রেলিয়ার প্রতিপক্ষ একই গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন দল। ওই গ্রুপে আছে আর্জেন্টিনা, পোল্যান্ড, মেক্সিকো ও সৌদি আরব।