আপনি পড়ছেন

গোটা দুনিয়া কাঁপছে ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ-জ্বরে। এর মধ্যে যে ক্রিকেটে রোমাঞ্চকর একটা ম্যাচ হয়ে গেল সেটার খবরই বা কজন জানতে পেরেছেন! বুধবার রাতে পাল্লেকেল্লেতে ৬২৭ রানের উপভোগ্য ম্যাচে আফগানিস্তানকে চার উইকেটে হারিয়েছে শ্রীলঙ্কা। বিফলেই গেল ইব্রাহিম জাদ্রানের ১৬২ রানের দারুণ ইনিংসটা। শেষ ওভারে ১৩ রানের সমীকরণটা লঙ্কানরা মিলিয়ে ফেলে।

ibrahim zadranবিফলে গেল ইব্রাহিমের ১৬২ রানের ইনিংস

তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটিতে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাকে ৬০ রানের বড় ব্যবধানে হারায় আফগানিস্তান। পরের ম্যাচ ভেস্তে যায় বৃষ্টির কারণে। গতকাল তৃতীয় ম্যাচে জমজমাট লড়াই উপহার দিয়েছে দুই দল। যেখানে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ওভারে আট উইকেটে ৩১৩ রান করে আফগানিস্তান। জবাবে ছয় উইকেট হারিয়ে দুই বল হাতে রেখে নাটকীয় জয় তুলে নেয় লঙ্কানরা।

এই জয়ে তিন ম্যাচের সিরিজ ১-১ ব্যবধানে সমতায় শেষ করল দুই দল। ৮৩ রানের অপরাজিত ইনিংসে ম্যাচ সেরা হয়েছেন চারিথ আসালাঙ্কা। ইব্রাহিমের জন্য সান্ত্বনা, তিনি পেয়েছেন সিরিজ সেরার পুরস্কার। লঙ্কানরা তিনশ ছাড়িয়েছে তার সেঞ্চুরির ওপর দাঁড়িয়েই। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের অষ্টম ম্যাচেই তৃতীয় শতকের দেখা পেয়েছেন ইব্রাহিম।

শতকের সম্ভাবনা জাগিয়েছিলেন আরেক জাদ্রান, নাজিবুল্লাহ জাদ্রানও। কিন্তু ৭৬ বলে ৭৭ রানে আউট হয়ে যান তিনি। ইনিংস সাজান আটটি চার ও এক ছক্কায়। ইব্রাহিমের ১৩৮ বলের ইনিংসটি ছিল ১৫ চার ও চার ছক্কায় গড়া। এ ছাড়া রহমত শাহ ২২, মোহাম্মদ নবি ১২ এবং রশিদ খান ১৩ রান করেন। লঙ্কানদের পক্ষে সর্বোচ্চ তিন উইকেট নেন কাসুন রাজিথা।

রান তাড়া শ্রীলঙ্কার শুরুটা হয় দারুণ। উদ্বোধনী জুটিতে দলীয় সংগ্রহ পার করেন দুই ওপেনার পাথুস নিসাঙ্কা ও কুশল মেন্ডিস। দুজনই ফিরেছেন দ্রুতই। নিসাঙ্কা ৫৫ বলে ৩৫ এবং কুশল ৬১ বলে ৬৭ রানে ফেরেন সাজঘরে। নতুন ব্যাটার ধনঞ্জয়া ডি সিলভা এলেন আর গেলেন। ১৫ রানের মধ্যে তিন উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে শ্রীলঙ্কা।

চাপের মুহূর্তে লঙ্কানদের পথ দেখান আসালাঙ্কা। ডিনেশ চান্দিমাল, অধিনায়ক দাসুন সানাকা ও দুনিথ লেভালাগেকে নিয়ে কার্যকর তিনটি জুটি গড়েন। এই জুটিগুলো ম্যাচ থেকে ছিটকে দেয় আফগানদের। ৩২ বলে ৩৩ রানে ফেরেন চান্দিমাল। ৪৪ বলে ৪৩ রান এসেছে সানাকার ব্যাট থেকে। ২১ বলে ৩১ রানে অজেয় থাকেন ভেলালাগে।

৭২ বলে পাঁচ চার ও চার ছক্কায় ৮৩ রানে অপরাজিত থাকেন আসালাঙ্কা। অথচ ব্যাটারদের ঝড় তোলার ম্যাচে দারুণ বোলিং করেছেন আফগান স্পিনার রশিদ খান। ৩৭ রানের বিনিময়ে চার উইকেট নিয়েছেন তিনি। নবির শিকার দুটি।