আপনি পড়ছেন

আর্থিক কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে ইমপিচমেন্টের হুমকির মুখে পড়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসা। একটি খামার থেকে ৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার তছরূপের ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ায় অভিযুক্ত করা হয়েছে তাকে। যদিও তিনি তা অস্বীকার করেছেন। তবে ক্ষমতাসীন এএনসি দলের নেতৃত্ব নির্বাচনের আগমুহূর্তে এমন অভিযোগে বিপাকে পড়েছেন রামাফোসা। খবর বিবিসি।

cyril ramaphosaদক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট সিরিলি রামাফোসা

‘ফার্মগেট কেলেঙ্কারি’ নামে অর্থ তছরূপের ঘটনা জড়িয়ে গেছে প্রেসিডেন্ট রামাফোসার নামের সঙ্গে। ২০২০ সালে দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে অবস্থিত ‘ফালা ফালা’ নামে একটি মহিষের খামার থেকে ৪ মিলিয়ন ডলার ডাকাতি হয়। প্রেসিডেন্টের নিজের ওই খামারে চুরির ঘটনাটি দেশজুড়ে আলোচনার জন্ম দিলেও একপর্যায়ে চাপা পড়ে যায়।

তবে গত জুনে একটি স্বাধীন তদন্ত প্যানেল খুঁজে বের করে ভয়ানক এক তথ্য। ওই তদন্ত প্যানেলের প্রধান দেশের সাবেক গোয়েন্দা প্রধান আর্থার ফ্রেসার। তিনি সাবেক প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমার ভক্ত বলে পরিচিতি।

তদন্ত কমিটির তিন খণ্ডের প্রতিবেদনে বলা হয়, ৪ মিলিয়ন ডলার চুরির ঘটনাটি রহস্যজনক। ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে। ক্ষমতার অপব্যবহার করে ওই ঘটনা ধামাচাপা দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট নিজে।

সাবেক গোয়েন্দা প্রধান আর্থার ফ্রেসার আশঙ্কা করছেন, চুরি বা ডাকাতি হওয়ার কথা বলে ওই অর্থ সরিয়ে বিদেশে পাচার করা হয়েছে।

অভিযোগ পাওয়া গেছে, ওই ঘটনার পর কয়েকজন জড়িত চোর বা ডাকাত অপহৃত হয়েছেন এবং কাউকে ঘুষ দিয়ে মুখ বন্ধ করে দিয়েছেন স্বয়ং প্রেসিডেন্ট।

চুরির ঘটনা সম্পর্কে জানা গেছে, মহিষ বিক্রির অর্থ সোফার নিচে রাখা হয়েছিল। সেখান থেকেই খোয়া গেছে।

তবে তদন্তকারীদের প্রশ্ন, এত পরিমাণ অর্থ কেন সোফার নিচে রাখা হয়েছিল, কেন ব্যাংকে নিরাপদে রাখা হয়নি।

এদিকে প্রেসিডেন্ট রামাফোসা এসব বিষয়ে অভিযোগ অস্বীকার করলেও তদন্ত প্রতিবেদন পার্লামেন্টে জমা দেওয়া হচ্ছে। যাচাই-বাছাই শেষে তার বিরুদ্ধে ইমপিচমেন্টের প্রস্তাব উত্থাপন করা হতে পারে।

ক্ষমতাসীন এএনসি দলের নির্বাহী কমিটিতেও বিষয়টি আলোচনা হবে।

রামাফোসার বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ এমন সময়ে উঠলো, যখন ক্ষমতাসীন এএনসি দলের প্রধান নির্বাচন এ মাসেই হতে যাচ্ছে। দ্বিতীয়বারের মতো পদটিতে নির্বাচিত হতে ইচ্ছুক রামাফোসা। তবে পার্লামেন্ট কোনো ব্যবস্থার দিকে এগোলো সবাই ভেস্তে যাবে রামাফোসার।