আপনি পড়ছেন

তিনটি ম্যাচ শেষে রাউন্ড অব সিক্সটিনে জায়গা করে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। নকআউট পর্বে সকারুদের প্রতিপক্ষ লিওনেল মেসির দল আর্জেন্টিনা। আগামী ৩ ডিসেম্বর বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় শেষ আটে উঠার মিশনে মাঠে নামবে এই দুই দল। শক্তির বিচারে স্বাভাবিকভাবেই এগিয়ে থাকবে লা আলবিসেলস্তেরা। যদিও বিষয়টা নিয়ে ভীত নন অস্ট্রেলিয়ার তারকা খেলোয়াড় মিচেল ডিউক।

australia football team 5শেষ ষোল নিশ্চিত করেছে সকারুরা

ফ্রান্সের কাছে ৪-১ গোলের বড় ব্যবধানে হেরে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করে অস্ট্রেলিয়া। দ্বিতীয় ম্যাচেই ঘুরে দাঁড়ায় দারুণভাবে। তিউনিশিয়াকে ১-০ ব্যবধানে পরাজিত করে আশা টিকিয়ে রাখে তাসমান পাড়ের প্রতিনিধিরা। গ্রুপ পর্বের বাধা অতিক্রম করতে শেষ ম্যাচে ডেনমার্কের বিপক্ষে জিততেই হতো অস্ট্রেলিয়াকে।

সেই কঠিন সমীকরণ মিলিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। গতকাল গ্রুপ পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে ইউরোপের প্রতিনিধিদের ১-০ গোলে হারিয়ে ফ্রান্সের পর দ্বিতীয় দল হিসেবে ‘ডি’ গ্রুপ থেকে শেষ ষোলোর টিকিট নিশ্চিত করেছে ক্যাঙ্গারুরা। তাতেই ফুরিয়েছে ১৬ বছরের অপেক্ষা। সবশেষ ২০০৬ জার্মানি বিশ্বকাপের নকআউটে খেলেছে অস্ট্রেলিয়া।

আর্জেন্টিনার শেষ ষোলোর রাস্তাটাও একই বিন্দুতে মিলেছে। প্রথম ম্যাচে হারার পর টানা দুই জয় তুলে নিয়ে গ্রুপ পর্ব পার করেছে লিওনেল স্ক্যালোনির শিষ্যরা। সবশেষ ম্যাচে পোল্যান্ডের বিপক্ষে দুর্দান্ত ফুটবল প্রদর্শনীতে হারানো আত্মবিশ্বাস ফিরে পেয়েছে সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা।

তবে প্রতিপক্ষকে নিয়ে না ভেবে নিজেদের শক্তিতে এগিয়ে যেতে চান ডিউক। সংবাদমাধ্যমকে এই ফরোয়ার্ড বলেন, ‘যে দলকেই ইচ্ছা আমাদের সামনে এনে দিতে পারেন। আমার মনে হচ্ছে, আমরা যে কারও সাথে লড়াই করতে পারবো। আমাদের আত্মবিশ্বাস এমনই। এই মানসিকতা নিয়েই মাঠে নামি। সবাই অস্ট্রেলিয়াকে বাতিলের খাতায় ফেলে দিয়েছিল। অথচ আমরা গ্রুপে দ্বিতীয় হয়েছি। এটা অনেক বড় কিছু। আমাদের পথচলা এখনও শেষ হয়ে যায়নি। আমরা ইতিহাস গড়তে চাই।’

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর