আপনি পড়ছেন

পাইকারি পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর পর গ্রাহক পর্যায়ে দাম বাড়ানো পরিকল্পনা শুরু হয়েছে। জ্বালানি তেলে উচ্চমূল্যের কারণে এমনিতেই কষ্টে আছে মানুষ। এর মধ্যে বিদ্যুতের দাম আবারও বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে বিতরণ কোম্পানিগুলো।

pdbবিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি)

অর্থনীতিবিদরা বলছেন, তীব্র মূল্যস্ফীতির মধ্যে বিদ্যুতের দাম বাড়িয়েছে সরকার। এখন গ্রাহক পর্যায়ে যদি আবার দাম বাড়ানো হয়, তবে জনগণের ওপর আরও চাপ বাড়বে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীতে ডিপিডিসি’র আওতাভুক্ত বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন শেষে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ জানিয়েছে, গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দামের বিষয়ে যাচাই-বাছাই করে সিদ্ধান্ত নেবে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)।

পাইকারি পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম দাম ১৯.৯২ শতাংশ বাড়িয়েছে বিইআরসি। ইউনিট প্রতি বিদ্যুতের গড় দাম ছিল ৫ টাকা ১৭ পয়সা, যা বাড়িয়ে ৬ টাকা ২০ পয়সা করা হয়েছে। ১ ডিসেম্বর থেকে নতুন এ দাম কার্যকর হয়।

এরপর খুচরা পর্যায়ে দাম বাড়ানোর আবেদন করলো বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি)। গড়ে ১৯.৪৪ শতাংশ দাম বাড়ানোর আবেদন করেছে তারা। প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম গড়ে ১ টাকা ৪৭ পয়সা বাড়ানোর আবেদন করেছে পিডিবি।

এছাড়া অন্যান্য বিতরণ সংস্থাও আবেদন জমা দিয়েছে বলে বিইআরসি সূত্রে জানা গেছে।

বিইআরসি’র চেয়ারম্যান আবদুল জলিল বলেছেন, গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর আবেদন করেছে পিডিবি। সবাই আবেদন করলে তা যাচাই-বাছাই করে আইন ও বিধি অনুসারে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর