আপনি পড়ছেন

পিকেকে সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর এক সদস্যকে তুরস্কের কাছে হস্তান্তর করেছে সুইডেন। ওই ব্যক্তির নাম মাহমুদ তাত। পিকেকে সদস্য হিসেবে গ্রেপ্তার হওয়ার পর সুইডেনে তার ৬ বছর ১০ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছিল। ২০১৫ সালে সুইডেনে আশ্রয়ের জন্য আবেদন করেছিলেন তিনি। তুরস্কের নিরাপত্তা উদ্বেগ সম্পূর্ণরূপে দূর করতে আঙ্কারাকে সহযোগিতার অঙ্গীকার করেছিল সুইডেন। টিআরটি ওয়ার্ল্ডের খবর।

pkk terrorপিকেকে সদস্যকে তুরস্কে হস্তান্তর করল সুইডেন

খবরে বলা হয়, সুইডেনে সাজা হওয়ার পর তাতকে মোলন্ডালের একটি ডিটেনশন সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার পর তাকে বিমানে করে তুরস্কে পাঠানো হয়েছে।

সুইডেন ও ফিনল্যান্ড আনুষ্ঠানিকভাবে গত মে মাসে ন্যাটোতে যোগদানের জন্য আবেদন করে। ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের কারণে কয়েক দশকের সামরিক নিরপেক্ষতা পরিত্যাগ করে দেশটি ন্যাটো সামরিক জোটে ভিড়েছে।

তুরস্ক ৭০ বছরেরও বেশি সময় ধরে ন্যাটোর সদস্য। দুই নরডিক দেশ ন্যাটোর সদস্য পদের আবেদনে আপত্তি জানিয়েছিল তুরস্ক। আঙ্কারার অভিযোগ ছিল, দুই দেশ পিকেকে সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে প্রশ্রয় দিচ্ছে। তারা পিকেকে গোষ্ঠীর প্রতি সমর্থন করে বলেও দাবি করেছিলেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান।

তুরস্ক ও দুটি নর্ডিক দেশ গত জুনে ন্যাটো শীর্ষ সম্মেলনে একটি চুক্তিতে স্বাক্ষর করে। আঙ্কারার দাবি অনুযায়ী সুইডেন ও ফিনল্যান্ড শর্ত মেনে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়। শর্ত ছিল, পিকেকের সন্ত্রাসী যারা দেশ দুটিতে আশ্রয় নিয়েছে, তাদের তুরস্কের হাতে তুলে দিতে হবে। চুক্তিতে ফিনল্যান্ড ও সুইডেন তুরস্কের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য হুমকি মোকাবেলায় পূর্ণ সমর্থনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। তারা পিকেকে ও এর সিরিয়ান শাখা ওয়াইপিজি এবং ফেটো সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে সমর্থন দেবে না বলে কথা দিয়েছিল।

সেই প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে মূলত পিকেকে সন্ত্রাসীকে আঙ্কারার হাতে তুলে দিয়েছে সুইডেন। এরদোয়ানসহ তুর্কি কর্মকর্তারা হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, চুক্তি সম্পূর্ণ বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত সুইডেন এবং ফিনল্যান্ডের সদস্যপদে সম্মতি দেবেন না তারা। একটি দেশের ন্যাটোতে যোগদানের জন্য সদস্য দেশগুলোর সর্বসম্মত সম্মতি প্রয়োজন।

আঙ্কারার দাবি, তুরস্কের বিরুদ্ধে ৩৫ বছরেরও বেশি সময় ধরে সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালাচ্ছে পিকেকে। সংগঠনটি যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের সন্ত্রাসী তালিকায়ও রয়েছে। পিকেকের সন্ত্রাসী হামলায় এ পর্যন্ত ৪০ হাজারেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর