আপনি পড়ছেন

বাংলাদেশ থেকে পোশাক আমদানির পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন অফিসিয়াল সোর্স- অফিস অব টেক্সটাইলস অ্যান্ড অ্যাপারেল (অটেক্সা) চলতি বছরের জানুয়ারি-সেপ্টেম্বরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পোশাক আমদানির পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছে। এই সময়ে বাংলাদেশ থেকে তাদের পোশাক আমদানি বৃদ্ধি পেয়েছে ৫০.৯৮ শতাংশ।

germents industry in bangladeshবাংলাদেশ থেকে ৭.৫৫ বিলিয়ন ডলারের পোশাক আমদানি করেছে যুক্তরাষ্ট্র

রোববার, ৪ ডিসেম্বর বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রফতানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) পরিচালক মো. মহিউদ্দিন রুবেল গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অটেক্সের তথ্যানুযায়ী,  জানুয়ারি-সেপ্টেম্বরে বিশ্ব থেকে যুক্তরাষ্ট্রের পোশাক আমদানি ৩৪.৬১ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এই ৯ মাসে বাংলাদেশ থেকে ৭.৫৫ বিলিয়ন ডলারের পোশাক আমদানি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এই সময়ে বাংলাদেশ থেকে দেশটির পোশাক আমদানি বৃদ্ধি পেয়েছে ৫০.৯৮ শতাংশ। 

২২.৪৮ শতাংশ শেয়ার নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে সর্ব বৃহত্তম পোশাক সরবরাহকারী দেশ চীন। ১৮.৫১ শতাংশ শেয়ার নিয়ে ভিয়েতনাম পরের অবস্থানে। ৮.৫৪ শতাংশ শেয়ার নিয়ে বাংলাদেশ ৩য় বৃহত্তম উৎস হিসাবে অবস্থান ধরে রেখেছে।

চীন থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আমদানি ২৮.৯৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ১৭.৭২ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে পৌঁছেছে। একই সময়ে ভিয়েতনাম থেকে আমদানি ১৪.৫৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে দাঁড়িয়েছে। প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৩৪.৬৯ শতাংশ।

যুক্তরাষ্ট্রে অন্য পোশাক সরবরাহকারীদেরও উল্লেখযোগ্য প্রবৃদ্ধি হয়েছে। ইন্দোনেশিয়ার ৫৪.৬৬ শতাংশ, ভারত ৫৩.৩৯ শতাংশ, কম্বোডিয়া ৪৬.৫৮ শতাংশ, পাকিস্তান ৪০.১১ শতাংশ ও দক্ষিণ কোরিয়ার ৩৯.৬১ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে।