আপনি পড়ছেন

পাকিস্তানের নতুন সেনাপ্রধান জেনারেল আসিম মুনির বলেছেন, তার দেশের বিরুদ্ধে ভারতের যে কোনো দুঃসাহসিক অভিযান পূর্ণ শক্তির সাথে মোকাবেলা করা হবে। মাতৃভূমির প্রতি ইঞ্চি ভূমি রক্ষা করবে পাকিস্তান সামরিক বাহিনী। দেশটির প্রধান গোয়েন্দা সংস্থা ইন্টার-সার্ভিসেস ইন্টেলিজেন্সের (আইএসআই) বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম দ্য ডন।

army chief asim munirপাকিস্তানের সেনাপ্রধান জেনারেল আসিম মুনির

সদ্য সেনাপ্রধানের দায়িত্ব নেয়া জেনারেল আসিম মুনির গোলযোগপূর্ণ কাশ্মিরের সীমান্ত এলাকা পরিদর্শনের সময় এই মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, সম্প্রতি ভারতের শীর্ষ পর্যায় থেকে গিলগিট-বালতিস্তান এবং জম্মু ও কাশ্মিরের ব্যাপারে খুবই দায়িত্বজ্ঞানহীন কিছু মন্তব্য করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আমি বলতে চাই, আমাদের সশস্ত্র বাহিনী সদা সতর্ক রয়েছে। তারা শুধু মাতৃভূমির প্রতি ইঞ্চি ভূখণ্ড রক্ষা করবে না বরং পাকিস্তানের ওপর যুদ্ধ চাপিয়ে দেয়া হলে, সেক্ষেত্রে কড়া জবাব দেবে।

তিনি বলেন, কোনো ভুল ধারণার কারণে যদি কেউ এই দুঃসাহসিক কাজ (লড়াই) করতে চায়, তাহলে আমাদের সশস্ত্র বাহিনীর পূর্ণ শক্তির সাথে তা মোকাবেলা করবে। ফলে ভারত কখনোই তার জঘন্য এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে সক্ষম হবে না।

kashmir map 3কাশ্মিরের মানচিত্র

এ সময় আসিম মুনির কাশ্মিরে ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে এবং জাতিসংঘের রেজুলেশন অনুযায়ী কাশ্মিরি জনগণকে যে সব প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে, তা প্রদানের জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান।

পাকিস্তান সেনাপ্রধানের সাম্প্রতিক এই বক্তব্যের ব্যাপারে ভারত এখন পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেনি।

কিছদিন আগে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেছিলেন, পাকিস্তানের নিয়ন্ত্রণে থাকা কাশ্মির ভারতেরই অংশ এবং যথাসময়ে সেটিকে আবার মানচিত্রে ফেরত আনা হবে। তার এই বক্তব্যকে সমর্থন করে ভারতীয় সেনাবাহিনীর উত্তরাঞ্চলীয় কমান্ডের জেনারেল অফিসার কমান্ডিং-ইন-চিফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল উপেন্দ্র দ্বিবেদী গত সপ্তাহে বলেছিলেন, সেনাবাহিনী সরকারের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের জন্য সম্পূর্ণ প্রস্তুত।

ভূ-স্বর্গ হিসেবে খ্যাত কাশ্মিরকে নিজেদের বলে দাবি করে ভারত-পাকিস্তান উভয় দেশই। এর ছোট একটি অংশ আবার নিয়ন্ত্রণ করে চীন। ১৯৪৭ সালে বিভক্ত হওয়ার পর থেকে ভারত-পাকিস্তান তিনটি যুদ্ধ করেছে, যার দুটিই হয়েছে কাশ্মির নিয়ে। বিভিন্ন মানবাধিকার গোষ্ঠীর মতে, ১৯৮৯ সাল থেকে কাশ্মিরে সংঘাত-সংঘর্ষ ব্যাপকহারে বেড়ে যায়। তখন থেকে সেখানে হাজার হাজার মানুষ হত্যা ও নির্যাতনের শিকার হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালে আগস্টে ভারত জম্মু ও কাশ্মিরের দীর্ঘস্থায়ী বিশেষ মর্যাদা বাতিল করার পর দুই দেশের মধ্যকার শীতল সম্পর্ক আরও বেশি হিমশীতল হয়ে পড়ে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর