আপনি পড়ছেন

২০২০ সালের নির্বাচন বানচাল করে দিয়ে নিজেকে ক্ষমতায় বসানোর জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধান বাতিলের আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত শনিবার তিনি এ আহ্বান জানান। তার এই অদ্ভুত আবদারের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে হোয়াইট হাউস। প্রতিদ্বন্দ্বী ডেমোক্রেটদের পাশাপাশি তার নিজ দল রিপাবলিকানদের অনেকেও তার এই আহ্বানের নিন্দা জানিয়েছে। খবর আলজাজিরা।

donald trump 15ডোনাল্ড ট্রাম্প

ট্রাম্প গত শনিবার তার মালিকানাধীন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ট্রুথ সোশ্যালে একটি পোস্টে এই আহ্বান জানান। তিনি লেখেন, আপনারা কি ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যান করেছেন, যথার্থ বিজয়ীর নাম ঘোষণা করেছেন অথবা নতুন নির্বাচন পেয়েছেন? কারণ এমন প্রতারণা সব রকম নিয়মকানুন, বিধিবিধান, আর্টিক্যাল এমনকি সংবিধানে যা আছে, সব কিছু বাতিল করার অনুমতি দেয়।

এ প্রতারণায় ডেমোক্রেটদের সঙ্গে বড় বড় প্রযুক্তি বিষয়ক সংস্থাগুলো ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করেছে বলেও অভিযোগ করেন ট্রাম্প। যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠাতাদের কথা টেনে এনে তিনি লেখেন, আমাদের মহান প্রতিষ্ঠাতারা এমন মিথ্যা ও প্রতারণামূলক নির্বাচন চাননি। তারা এটা মেনেও নিতেন না।

donald trump 15মার্কিন সংবিধান

হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র অ্যান্ড্রু বেটস তার এ মন্তব্যের ব্যাপারে বলেন, মার্কিন সংবিধানের ওপর আক্রমণ করা আমাদের জাতির আত্মার প্রতি আঘাত। তাই সর্বজনীনভাবেই এর নিন্দা করা উচিত। কারণ আপনি যখন জিতবেন তখনই কেবল আপনি আমেরিকাকে ভালোবাসতে পারবেন, তা হবে না।

যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধান একটি পবিত্র দলিল উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, কমপক্ষে ২০০ বছর ধরে এটা স্বাধীনতা ও আইনের শাসনের নিশ্চয়তা দিয়ে আসছে। এই সংবিধান যুক্তরাষ্ট্রের মানুষকে দলমত নির্বিশেষে একত্রিত করেছে। আর নির্বাচিত নেতারা তা সমুন্নত রাখার জন্য শপথ বাক্য পাঠ করেন।

সাবেক প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প আগামীতে আবারও নির্বাচনে নামার ঘোষণা দিয়েছেন। এরই ধারাবাহিকতায় তিনি একের পর এক তোপ দাগছেন। সংবিধান নিয়ে এই বিতর্কের আগে তিনি আলোচিত-সমালোচিত ক্যাপিটল হামলার ব্যাপারে বলেন, হোয়াইট হাউসে তিনি ফিরে আসলে ইউএস ক্যাপিটলে হামলাকারী দাঙ্গাকারীদের ক্ষমা করে দেবেন।

হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে ডেমোক্রেটিক নেতা হেকিম জেফরিস গতকাল রোববার ট্রাম্পের বিবৃতিকে অদ্ভুত ও চরম আখ্যা দিয়ে বলেছেন, ট্রাম্পের গণতন্ত্রবিরোধী দৃষ্টিভঙ্গি মেনে নেবেন কি না তা রিপাবলিকানদের ঠিক করে নিতে হবে। তাদের সিদ্ধান্ত নিতে হবে ট্রাম্পের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে তারা যুক্তিযুক্ত কোনো কিছুর দিকে ফিরে যাবেন, নাকি ট্রাম্পবাদের মতো চরমপন্থার দিকে তারা ঝুঁকে থাকবেন।

ট্রাম্পের সংবিধান-মন্তব্য সম্পর্কে হাউস ইন্টেলিজেন্স কমিটিতে থাকা ওহিও অঙ্গরাজ্যের রিপাবলিকান প্রতিনিধি মাইক টার্নার বলেছেন, তিনি এই মন্তব্যের সাথে কোনোভাবেই একমত নন। সংবিধান বাতিলের মতো মন্তব্যের তীব্র নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন, ২০২৪ সালের নির্বাচনে কে রিপাবলিকানদের প্রতিনিধিত্ব করবে তাতে এই বিষয়টি ফ্যাক্টর হওয়া উচিত। আমি বিশ্বাস করি, একজন প্রার্থীকে মূল্যায়ন করার সময় লোকজন অবশ্যই এই জাতীয় বিবৃতি বিবেচনা করবে।

প্রতিনিধি পরিষদে রিপাবলিকান প্রতিনিধি মাইক ললারও এই মন্তব্যে আপত্তি জানিয়ে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধান তৈরি করা হয়েছে প্রতিটি আমেরিকানের অধিকার রক্ষা করার জন্য। আমি মনে করি সাবেক প্রেসিডেন্ট যদি আবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চান তবে তাকে এসব মন্তব্য করার ব্যাপারে সতর্ক হতে হবে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর