আপনি পড়ছেন

নাইজেরিয়ার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে একটি মসজিদে হামলা করেছে বন্দুকধারীরা। তারা ১৯ মুসল্লিকে অপহরণও করেছে। গত শনিবার মাগরিবের নামাজের সময় কাতসিনা রাজ্যের মাইগামজি গ্রামে এই হামলা হয় বলে জানিয়েছে দেশটির পুলিশ। এএফপির খবর।

nigeria mosque attackনাইজেরিয়ায় মসজিদে হামলা, ১৯ মুসল্লিকে অপহরণ

স্থানীয় পুলিশের মুখপাত্র গাম্বো ইসাহ বলেন, শনিবার সন্ধ্যায় নামাজের সময় বন্দুকধারীরা হামলা চালায়। তাদের গুলিতে মসজিদের ইমামসহ দুজন আহত হন। পরে তারা ১৯ জন মুসল্লিকে ধরে নিয়ে যায়। তাদের লক্ষ্য মুক্তিপণ আদায়।

খবরে বলা হচ্ছে, এ ঘটনায় মাঠে নেমেছে পুলিশ। হামলাকারীদের ডাকাত বলে মনে হচ্ছে। প্রাথমিকভাবে ৬ জনকে অপহারণকারীদের হাত থেকে উদ্ধার করা গেলেও ১৩ জন এখনও নিখোঁজ রয়েছেন। তাদের উদ্ধারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। আহত দুজনকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে জানান ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

উত্তর-পশ্চিম ও মধ্য নাইজেরিয়ায় স্থানীয়ভাবে বন্দুকধারী ডাকাতদের হামলা-লুট বেড়েছে। তারা প্রায়ই বিভিন্ন স্থানে হামলা চালিয়ে মানুষ অপহরণ করছে। এতে বাসিন্দারা আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়েছে। অনেক সময় দেখা যায়, বন্দুকধারী ডাকাতরা গবাদিপশু ও বিভিন্ন মালামাল লুট করে নিয়ে যাচ্ছে। অপহরণের পর এরা মুক্তিপণ দাবি করে থাকে।

কাতসিনাসহ উত্তর-পশ্চিম নাইজেরিয়ার চারটি রাজ্যে এই ডাকাতদের উৎপাত বেড়েছে। তারা বিস্তির্ণ রুগু বনে আশ্রয় নিয়ে এসব লুটপাট ও অপহরণের কাজ চালাচ্ছে। গতমাসে কাদুনা রাজ্যের একটি গ্রামে দস্যুদের হামলায় ১৫ জন নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়।

নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুহাম্মাদু বুহারির ক্ষমতার মেয়াদ এখন শেষের দিকে। এই সময়ে এসে তিনি ব্যাপক চাপের মুখে রয়েছেন। তিনি বন্দুকধারীদের অপতৎপরতা রুখতে তার প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছেন। তবে ডাকাতদের হামলা-লুট ঠেকানো কঠিন হয়ে পড়েছে। জনগণ ব্যাপক আতঙ্কে রয়েছে। অপহরণকারীরা মুক্তিপণ নিয়ে বহু মানুষকে ছেড়েও দিচ্ছে।

নাইজেরিয়ার উত্তর-পূর্বে মুসলিমদের মধ্যে একটি বিদ্রোহী গোষ্ঠী মাথাচাড়া দিয়েছে, যারা খেলাফত প্রতিষ্ঠা করতে চায়। এই জিহাদিদের সাথে বন্দুকধারীরা জোট করার পর দেশটির সরকারের মধ্যে ব্যাপক উদ্বেগ দেখা গেছে। তবে সরকারি বাহিনী প্রায়ই বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে অভিযান চালায়।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর