আপনি পড়ছেন

ইউক্রেনে যুদ্ধ বন্ধে রাজি হলে মস্কোর নিরাপত্তার নিশ্চয়তা নিয়ে ভাবতে হবে এ মর্মে ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাখোঁর প্রস্তাবের সমালোচনা করেছেন ইউক্রেনের কর্মকর্তারা। মাখোঁকে ইঙ্গিত করে সামাজিক মাধ্যমে তীর্যক মন্তব্য করেছেন কেউ কেউ। জবাবে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইউক্রেনে অস্ত্র সরবরাহ বন্ধের হুমকি দিয়েছেন। খবর ফোর্বস ও ইজভেস্তিয়া।

emanuel macron 2018যুদ্ধবন্ধে রাজি হলে রাশিয়ার নিরাপত্তা নিশ্চয়তার বিষয়টি বিবেচনার প্রস্তাব দিয়েছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট

ফরাসি টিভি চ্যানেল টিএফওয়ানের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে এমানুয়েল মাখোঁ বলেছেন, মস্কোর কর্মকর্তারা ইউক্রেনে যুদ্ধ বন্ধে আলোচনায় রাজি হলে পশ্চিমা দেশগুলোর উচিত হবে কিভাবে রাশিয়াকে নিরাপত্তার নিশ্চয়তা দেওয়া যায়, তা ভাবা। বিশেষত ইউরোপকে নিজের ভবিষ্যত নিরাপত্তা কাঠামো নিয়ে ভাবতে হবে এবং একইসঙ্গে যেদিন থেকে রাশিয়া আলোচনার টেবিলে ফিরবে সেদিন থেকে কিভাবে দেশটিকে নিরাপত্তার বিষয়ে আশ্বস্ত করা যায় তা বিবেচনা করতে হবে।

এমানুয়েল মাখোঁর এ বক্তব্যে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি কোনো প্রতিক্রিয়া জানাননি। তবে ইউক্রেন ও কয়েকটি মিত্র দেশের কর্মকর্তারা তীর্যক মন্তব্য করেছেন। রাশিয়ার যুদ্ধাপরাধের বিচারের কথা না বলে ফরাসি প্রেসিডেন্ট কিভাবে দেশটিকে নিরাপত্তা নিশ্চয়তা দেওয়ার কথা বলছেন, সে প্রশ্নও তুলেছেন কেউ কেউ।

জেলেনস্কির প্রধান সহযোগী মিহাইলো পোডোলিয়াক বলেছেন, বিশ্ব সম্প্রদায় কিভাবে রাশিয়াকে আশ্বস্ত করবে তা নয়, বরং বিশ্ব কিভাবে নিরাপদ থাকবে সে বিষয়ে রাশিয়ার কাছ থেকে নিশ্চয়তা আদায় করতে হবে। টুইটারে এক পোস্টে পোডোলিয়াক লেখেছেন- পুতিন-উত্তর যুগে রাশিয়ার বর্বর মনোভাব থেকে সভ্য দুনিয়ার সিকিউরিটি গ্যারান্টি দরকার।

ফিনল্যান্ডের সাবেক প্রধানমন্ত্রী আলেক্সান্ডার স্টাব বলেছেন, ফরাসি প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আমি মৌলিকভাবে দ্বিমত পোষণ করছি। একমাত্র যে সিকিউরিটি গ্যারান্টির বিষয়ে আমাদের আলোকপাত করতে হবে, তার পুরোটাই নন-রাশিয়ান। সবার আগে রাশিয়াকে নিশ্চয়তা দিতে হবে যে তারা কাউকে আক্রমণ করবে না।

লিথুয়ানিয়ার সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিনাস লিঙ্কেভিকাস বলেছেন, যতক্ষণ পর্যন্ত অন্য দেশে আক্রমণ, দখল ও ভূখণ্ড সংযোজন না করে ততক্ষণ পর্যন্ত রাশিয়ার সিকিউরিটি গ্যারান্টি রয়েছে। মাখোঁর প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, কেউ যদি এমন নিরাপত্তা কাঠামো গড়তে চান যেখানে একটি সন্ত্রাসী রাষ্ট্র ভয়ভীতি প্রদর্শন অব্যাহত রাখতে পারবে, তাহলে তাকে দ্বিতীয়বার ভাবতে হবে। এমন আইডিয়া কেউ গ্রহণ করবে না।

ইউক্রেনের এমপি ও রাশিয়ার সঙ্গে আলোচক দলের সদস্য ডেভিড আরাখামিয়া বলেছেন, চারটি শর্ত পুরণ হলে ইউক্রেন রাশিয়ার সিকিউরিটি গ্যারান্টি দিতে পারে। প্রথমে রাশিয়াকে ইউক্রেন ছাড়তে হবে, ক্ষতিপূরণ দিতে হবে, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করতে হবে এবং স্বেচ্ছায় পারমাণবিক অস্ত্র সমর্পণ করতে হবে। এরপর আমরা তাদের সঙ্গে আলোচনা করব ও নিরাপত্তা নিশ্চয়তা নিয়ে কথা বলব।

রাশিয়াকে পারমাণবিক অস্ত্রমুক্ত ও সামরিক শক্তিহীন করার প্রস্তাব দিয়ে ইউক্রেনের ন্যাশনাল সিকিউরিটি অ্যান্ড ডিফেন্স কাউন্সিলের সেক্রেটারি ওলেক্সি দানিলভ বলেছেন, কেবল ইউক্রেন নয়, সারাবিশ্বের নিরাপত্তার গ্যারান্টি হতে পারে পারমাণবিক অস্ত্রমুক্ত ও বেসামরিকীকৃত রাশিয়া।

ফরাসি প্রেসিডেন্টকে ইঙ্গিত করে এক টুইটে দানিলভ লেখেছেন- কেউ একজন কি একটি সন্ত্রাসী, খুনি রাষ্ট্রকে নিরাপত্তার নিশ্চয়তা দিতে চান? ন্যুরেমবার্গ (ট্রাইব্যুনাল) গঠনের পরিবর্তে রাশিয়ার সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর ও হাত মেলানো?

দানিলভের মন্তব্যের জবাবে মাখোঁ বলেছেন, ফ্রান্স কোনো অবস্থাতেই ইউক্রেনে অস্ত্র সরবরাহ অব্যাহত রাখার জন্য নিজের সেনাবাহিনীর যুদ্ধ-সক্ষমতা খর্ব করতে রাজি হবে না। ইউক্রেনে কতদিন অস্ত্র সরবরাহ অব্যাহত রাখা যায় তা পশ্চিমা দেশগুলোকে ভাবতে হবে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর