আপনি পড়ছেন

অসাধারণ একটি বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য কাতারকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক। বিশ্বকাপের দ্বিতীয় পর্বে সেনেগালের বিরুদ্ধে ইংল্যান্ডের ম্যাচের আগে তিনি টুইটারে কাতারের প্রশংসা করেন।

rishi sunak british prime monisterঋষি সুনাক

রোববার রাতে আল বায়েত স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে সেনেগালের মুখোমুখি হয় ইংল্যান্ড। এই ম্যাচে সেনেগালকে ৩-০ গোলে পরাজিত করে বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে যায় ইংরেজরা।    

এই ম্যাচের আগে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক ইংল্যান্ড দলের জন্য শুভকামনা জানিয়ে একটি টুইট করেন। সেখানেই তিনি আয়োজক দেশ কাতারেরও প্রশংসা করেন। তিনি লেখেন, ‘এ পর্যন্ত অবিশ্বাস্য বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য কাতারকে অভিনন্দন। গ্রুপ পর্বের খেলাগুলো সর্বকালের সেরাদের একটি হিসেবে স্মরণীয় হয়ে থাকবে।' তিনি স্বপ্নকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য ইংল্যান্ড দলের খেলোয়াড়দের এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান।

তবে কাতারের প্রশংসা করায় সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর সমালোচনা করেছেন। তারা যথারীতি সমকামী, অভিবাসী শ্রমিকদের প্রতি কাতারের অমানবিক আচরণের কথা বলে সুনাকের সমালোচনা করেন।

এর আগে গত সপ্তাহে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ কাতারের প্রশংসা করে বলেছেন, তারা ইভেন্টটিকে সফল করে তোলার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করেছে। তিনি আরবি, ইংরেজি এবং ফরাসি ভাষায় লেখা টুইটে কাতারের প্রশংসা করেছিলেন।

french president emmanuel macron 2ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ

এবারের ফিফা বিশ্বকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট মধ্যপ্রাচ্যের ছোট দেশ কাতারে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। কিন্তু পশ্চিমা বিশ্ব টুর্নামেন্ট শুরুর আগে থেকেই কাতারের সমালোচনা করে যাচ্ছে। মানবাধিকার, সমকামীদের অধিকার, অভিবাসী শ্রমিকদের প্রতি বঞ্চনাসহ বিভিন্ন অভিযোগে ক্রমাগত কাতারকে আক্রমণ করে যাচ্ছে পশ্চিমা গণমাধ্যমগুলি। এরই মধ্যে ম্যাক্রোঁ, সুনাকের মত পশ্চিমা নেতাদের প্রশংসা কাতারের জন্য বিরল একটি অর্জন বলা যায়। 

উল্লেখ্য, ২০ নভেম্বর থেকে কাতারে শুরু হওয়া বিশ্বকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট শেষ হবে ১৮ ডিসেম্বর।

সূত্র: গালফ টাইমস, ডেইলি মেইল