আপনি পড়ছেন

টাইম ম্যাগাজিনের ২০২২ সালের ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ (সেরা ব্যক্তিত্ব) মনোনীত হয়েছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি। ইউক্রেনীয়দের অনুপ্রাণিত করে রাশিয়ান আক্রমণ সাহসের সাথে প্রতিহত করার জন্য তাকে এই সম্মাননায় ভূষিত করা হয়েছে। বলা হচ্ছে, তিনি তার কার্যক্রমের মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী প্রশংসা কুড়াতে সক্ষম হয়েছেন। রয়টার্স, মালয় মেইল।

volodymyr zelensky 8জেলেনস্কি

ম্যাগাজিনটির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউক্রেনে যখন বৃষ্টির মতো রাশিয়ান বোমা ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হচ্ছিল, জেলেনস্কি কিয়েভ ছেড়ে যেতে অস্বীকার করেন। কিয়েভে জনসমাবেশে অংশ নেন। এমনকি যুদ্ধের মধ্যেই তিনি দেশব্যাপী ভ্রমণ করেন। তিনি পূর্ব ইউক্রেনে সেনাদের সাথে সরাসরি যুদ্ধেx অংশগ্রহণ করেন।

৪৪ বছর বয়সী ইউক্রেন নেতার ব্যাপারে প্রতিবেদনে বলা হয়, যুদ্ধকালীন নেতা হিসেবে জেলেনস্কি যে ভূমিকা রেখেছেন, তার অনুপ্রেরণা প্রজন্মের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে। যুদ্ধের প্রথম দিনগুলোতে জেলেনস্কি মনোমুগ্ধকর নেতৃত্বে জাতিকে সাহস যোগান, যদিও সবাই বুঝতে পারে প্রেসিডেন্ট ও তার বাহিনীকে রাশিয়া ঘিরে ফেলেছে।

২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ শুরু হয়। যুদ্ধ এ পর্যন্ত অনেক দূর গড়িয়েছে। প্রতিদিন রাতে টেলিভিশনে যুদ্ধের তথ্য সংবলিত বক্তব্য দেন ইউক্রেন প্রেসিডেন্ট। তার বক্তব্যে ইউক্রেনের প্রতি সহযোগিতার জন্য যেমন আহ্বান থাকে, তেমনি রাশিয়ান সেনাদের বিরুদ্ধে কথার মিসাইল ছোড়েন তিনি। তার বক্তব্যে বিশ্বনেতারা অভাবনীয় সাড়া দিয়ে থাকেন। পশ্চিমা দেশগুলোর পক্ষ থেকে ইউক্রেনে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার সহায়তার পেছনে জেলেনস্কির ব্যাপক ভূমিকা রয়েছে বলে স্বীকার করা হয়।

টেসলা ইনকর্পোরেটেডের প্রধান নির্বাহী ইলন মাস্ককে ২০২১ সালে টাইম ম্যাগাজিনের পারসন অব দ্য ইয়ার মনোনীত করা হয়েছিল। তার বৈদ্যুতিক গাড়ি কোম্পানি বিশ্বের সবচেয়ে মূল্যবান কোম্পানি হিসেবে বিশ্বের বুকে আবির্ভূত হওয়ার পুরস্কার হিসেবে তাকে ওই সম্মাননা দেওয়া হয়। টাইম ম্যাগাজিন ১৯২৭ সাল থেকে ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ সম্মাননা প্রবর্তন করে আসছে।