আপনি পড়ছেন

আফগানিস্তানে ফের ক্ষমতায় আসার পর প্রথমবারের মতো প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করলো তালেবান সরকার। আজ বুধবার (৭ ডিসেম্বর) দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিম ফারাহ প্রদেশের জনাকীর্ণ স্টেডিয়ামে এক ব্যক্তি ফাঁসি দেওয়া হয়েছে। সরকারের শীর্ষস্থানীয় মন্ত্রীসহ কয়েক ডজন নেতা ফাঁসি কার্যকরে ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন। খবর বিবিসি।

flag afghanistan 1আফগানিস্তানের পতাকা

তালেবান সরকারের এক মুখপাত্র জানান, মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা ব্যক্তির নাম তাজমীর। হেরাত প্রদেশের বাসিন্দা গোলাম সারওয়ারের ছেলে তাজমীর প্রায় পাঁচ বছর আগে মোস্তফা নামে এক ব্যক্তিকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করে।

পরবর্তীতে ওই ব্যক্তিকে তালেবান আদালতে দোষী সাব্যস্ত করা হয়। হত্যার কথা স্বীকার করার পর তালেবানের সর্বোচ্চ নেতা মোল্লা হাইব্বাতুল্লাহ আখুন্দজাদা তার মৃত্যুদণ্ডের সাজা অনুমোদন করেন।

তালেবানের মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ বলেন,  ফারাহ প্রদেশের জনাকীর্ণ একটি স্টেডিয়ামে আজ বুধবার ফাঁসি ওই ব্যক্তির ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে। এ সময় সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিসহ জ্যেষ্ঠ মন্ত্রীদের মধ্যে বিচারমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী উপস্থিত ছিলেন।

taliban killingজনাকীর্ণ স্টেডিয়ামে এক ব্যক্তিকে প্রকাশ্যে ফাঁসি দিয়েছে তালেবান

আফগানিস্তানে আদালতের বিচারকদের সম্প্রতি শরিয়া আইন পুরোপুরি কার্যকর করার নির্দেশ দেন হাইবাতুল্লাহ আখুন্দজাদা। ওই আদেশে প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড, অঙ্গচ্ছেদ ও পাথর ছুঁড়ে মারার শাস্তি পুনর্বহাল করতে বলা হয়। আদেশ জারির সপ্তাহখানেকের মাথায় এই মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হলো।

সম্প্রতি শরীয়া আইন পুনর্বহালের অংশ হিসেবে প্রকাশ্যে বেত্রাঘাতের শাস্তিও দেওয়া হয়েছে।

আফগানিস্তানে গত বছরের ১৫ আগস্ট দ্বিতীয়বারের মতো ক্ষমতায় আসে তালেবান। এর আগে ১৯৯৬-২০০১ সাল পর্যন্ত তালেবানের প্রথম শাসনামলে কাবুলের জাতীয় স্টেডিয়ামে মৃত্যুদণ্ড সহ জনসমক্ষে নিয়মিত শাস্তি প্রদানের ঘটনা ঘটিয়েছে তালেবান। এজন্য তারা বিশ্বব্যাপী সমালোচিত হয়েছিল।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর