আপনি পড়ছেন

সুইডেন এবং নেদারল্যান্ডসে উগ্র ডানপন্থীদের দ্বারা কোরআনের অবমাননা করার জন্য বিশ্বব্যাপী মুসলমানদের সুইডিশ এবং ডাচ পণ্য বয়কট করার আহ্বান জানিয়েছে মিশরের শীর্ষ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয়। ২৫ জানুয়ারি, বুধবার এক বিবৃতিতে ইউরোপের এই দুটি দেশের পণ্য ব্যবহার না করতে মুসলিমদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

al azhar university egyptআল আজহার বিশ্ববিদ্যালয়

সুন্নি মুসলিম বিশ্বের প্রধান ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান মিশরের আল আজহারের এই আহ্বান, সুইডেন এবং নেদারল্যান্ডসের ঘটনা নিয়ে মুসলিম বিশ্বের সর্বশেষ প্রতিক্রিয়া। 

২১ জানুয়ারি, শনিবার ডেনমার্কের ইসলামবিরোধী অ্যাক্টিভিস্ট রাসমুস পালুদান সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে তুর্কি দূতাবাসের বাইরে কোরআন পুড়িয়ে দেন। এরপর ২২ জানুয়ারি রোববার ডানপন্থী পেগিডা আন্দোলনের ডাচ নেতা এডউইন ওয়াগেনসভেল্ড, দ্য হেগে ডাচ পার্লামেন্টের কাছে কোরআনের পাতা ছিঁড়ে ফেলেন এবং পদদলিত করেন।

আল আজহার কর্তৃপক্ষ এই ঘৃণ্য কর্মকাণ্ডের নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, এটি একটি অপরাধ। আর এর প্রতিক্রিয়া হিসেবে বিশ্বব্যাপী মুসলমানদের উচিত এই দুটি দেশের পণ্য বয়কট করা। মতপ্রকাশের স্বাধীনতার নাম করে এ ধরনের অন্যায়কে প্রশ্রয় দেওয়ার জন্য দেশ দুটির সরকারের সমালোচনাও করা হয়।

এদিকে ২৪ জানুয়ারি, মঙ্গলবার কোরআন পোড়ানোর ঘটনায় পাকিস্তানের পূর্বাঞ্চলীয় শহর লাহোরে কয়েকশ মানুষ বিক্ষোভ করেছেন। তুরস্কের দুই বৃহত্তম শহর ইস্তাম্বুল ও আঙ্কারায়ও বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

স্টকহোমের ঘটনার পর, তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়িপ এরদোয়ান জানিয়েছেন, ন্যাটোর সামরিক জোটে সুইডেনের যোগদানের বিষয়টি সমর্থন করবেন না তিনি। এছাড়া তুরস্কের দূতাবাসের বাইরে কুর্দিপন্থী বিক্ষোভের অনুমতি দেওয়ার জন্য তিনি সুইডেনের সমালোচনাও করেন।

উল্লেখ্য, ইউরোপীয় দেশগুলো বলেছে যে তারা মত প্রকাশের স্বাধীনতার অধিকার রক্ষা করছে, যদিও এসব দেশে সহিংসতা বা ঘৃণামূলক বক্তব্যের জন্য উসকানি দেওয়া অনেকাংশে নিষিদ্ধ। পালুদান এবং ওয়াগেনসভেল্ড উভয়কেই তাদের বিক্ষোভের জন্য কর্তৃপক্ষ অনুমতি দিয়েছিল।

সূত্র: দ্য নিউ আরব

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর