আপনি পড়ছেন

দেশের একমাত্র সোয়াম্প ফরেস্ট রাতারগুলে প্রবেশের ক্ষেত্রে পর্যটকদের এখন থেকে সরকারকে ফি দিতে হবে। পাশাপাশি সেখানে নৌকা ভ্রমণ, শ্যুটিংয়ের জন্য ভিডিও ধারণ ও গাড়ি পার্কিংয়ের ক্ষেত্রেও ফি নির্ধারণ করে দিয়েছে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়।

ratargul swamp forestরাতারগুল সোয়াম্প ফরেস্ট- ফাইল ছবি

সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের পর এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়। ভ্রমণ পিপাসুদের পছন্দের অন্যতম এ পর্যটন স্থানটি সিলেট জেলার গোয়াইনঘাট উপজেলায় অবস্থিত। মিঠা পানির এ জলাবনটি নিয়ন্ত্রণ করছে সিলেট বন বিভাগ।

প্রজ্ঞাপন থেকে জানা যায়, এখন থেকে রাতারগুলে প্রবেশ করতে প্রাপ্তবয়স্ক একজন পর্যটককে ৫০ টাকা ‘প্রবেশ ফি’ দিতে হবে। ১২ বছরের কম বয়সী অপ্রাপ্তবয়স্কদের দিতে হবে ২৫ টাকা। আইডিকার্ডধারী শিক্ষার্থীরাও ২৫ টাকা ফি দিয়ে এ জলাবনে প্রবেশ করতে পারবেন। তবে বিদেশি পর্যটকদের জন্য ‘প্রবেশ ফি’ নির্ধারণ করা হয়েছে ৫০০ টাকা।

এতে আরো বলা হয়, পানির মধ্যে বুক ডুবিয়ে থাকা গাছের এ বনের সৌন্দর্য্য উপভোগে ইঞ্জিনবিহীন নৌকা দিয়ে ভ্রমণ করতে বাংলাদেশি পর্যটকদের প্রতিবারে ১০০ টাকা ফি দিতে হবে। বিদেশি নাগরিকদের একবার নৌকা ভ্রমণ করতে দিতে হবে ১ হাজার টাকা। অপরদিকে, এ জলাবনে একদিন শ্যুটিং করতে ক্যামেরা প্রতি ‘ফিল্মমিং ফি’ দিতে হবে ১০ হাজার টাকা।

ratargul swamp forest 2রাতারগুল সোয়াম্প ফরেস্ট- ফাইল ছবি

এ ছাড়া যানবাহন নিয়ে আসা পর্যটদের পার্কিং ফি নির্ধারণ করা হয়েছে- মোটরসাইকেল ও সিএনজির জন্য ২৫ টাকা, কার, মাইক্রোবাস, জিপ, পিকআপের জন্য ১০০ টাকা এবং বাস বা ট্রাকের জন্য ২০০ টাকা।

এ বিষয়ে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেন, নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) পরিস্থিতির কারণে চলতি বছরের ২৬ মার্চ থেকে দেশের একমাত্র সোয়াম্প ফরেস্টটিতে দর্শনার্থীদের প্রবেশ প্রায় বন্ধই ছিল। শুধু কিছু পর্যটক কড়াকড়ি ও শর্ত সাপেক্ষে বনে প্রবেশ করতে পারতেন। সংক্রমণের বিস্তার কমায় গতকাল থেকে জলাবনটি পর্যটকদের জন্য ফের উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি নতুন করে বিভিন্ন খাতে পর্যটকদের জন্য ফি নির্ধারণ করা হয়েছে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর