আপনি পড়ছেন

১৭ বছর বয়সে আপনি কী করতেন? নিজের কলেজের ফাইনাল পরীক্ষা নিয়ে চিন্তা করতেন অথবা একটু আগে পড়াশোনা শুরু করলে বিশ্ববিদ্যালয় জীবনে পা রাখতেন। অথবা পারিবারিক প্রয়োজনে কোনো কাজের সন্ধান করতেন। কিন্তু অশ্বিন রমনের গল্পটা অন্য রকম।

ashwin raman earns money watching football all day

তার বয়স মাত্র ১৭। এই বয়সেই সে ফুটবল বিশেষজ্ঞ বনে গেছে! শুধু যে বিশেষজ্ঞ, তাই নয়; বরং ইউরোপিয়ান একটি ক্লাবের স্কাউট হিসেবে কাজ করছে সে। স্কটিশ ডান্ডি ইউনাইটেডে বিশেষজ্ঞ স্কাউট হিসেবেই কাজ করছে রমন।

২০১৯ সালে স্কটিশ ক্লাবটিতে স্কাউট হিসেবে যোগ দেয় রমন। এরপর থেকে ক্লাবটির শুধু উন্নতিই হয়েছে। তারা এখন স্কটিশ প্রিমিয়ারশিপের ছয় নম্বরে আছে।

“আমি এখনো প্রায়ই নিজের গায়ে চিমটি কাটি। এখনো বিশ্বাস হয় না যে আমি তাদের হয়ে কাজ করছি,” রেডিও ওয়ানের নিউজবিটের সঙ্গে কথা বলার সময় এমন মন্তব্য করে ভারতের এই কিশোর।

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে আমরা অনেকেই বাড়িতে বসে অফিসের কাজ করছি। রমনের জন্যও ব্যাপারটা একই রকম; কিন্তু তার বাড়ি ও অফিসের দূরত্ব আসলে একটু বেশিই— আট হাজার দুইশ পঁচিশ কিলোমিটার! আসলে রমন থাকে ব্যাঙ্গালুরুতে তার বাড়িতে, আর তার মূল অফিস স্কটল্যান্ডে!

“আমার ১৩তম জন্মদিনে আমি একটি ব্লগ শুরু করি এবং সেখানে লিখতে থাকি। আমি শুধু ফুটবল নিয়েই লিখতাম। এখন সেই ব্লগের দিকে তাকালে হাস্যকর মনে হয়,” রেডিও ওয়ানকে বলে রমন।

কিন্তু ফুটবল নিয়ে সে যতো ব্লগ লিখতে শুরু করে, টুইটারে ততোই তার ফলোয়ার বাড়তে থাকে। এক পর্যায়ে ২০১৯ সালে তার কাছে একটি স্পেশাল মেসেজ আসে যা বদলে দেয় তার জীবন।

“হঠাৎ স্টিভ গ্রিভের কাছ থেকে আমি একটি মেসেজ পাই। তিনি আমার কাছে জানতে চান আমি স্কাউট হিসেবে তাদের ক্লাবে কাজ করতে চাই কি না,” রমন বলে।

বিষয়টি রমনের জন্য ছিলো দারুণ এক সুযোগ। কারণ সে যা করছিলো, তা আরো ভালোভাবে এবং কার্যকর উপায়ে করার সুযোগ এসেছিলো তার জন্য।

রমনের মূল কাজ হলো ঘণ্টার পর ঘণ্টা ল্যাপটপে বসে খেলোয়াড়দের ভিডিও দেখা এবং তাদের পারফর্ম্যান্স অ্যানালাইসিস করা। এর মাধ্যমে সে একজন খেলোয়াড়ের গতি-প্রকৃতি ও সম্ভাবনা সম্পর্কে ধারণা পায় এবং তা ক্লাবের নতুন খেলোয়াড় খোঁজার কাজে ব্যবহৃত হয়।

রাত জেগে ইউরোপিয়ান দেশগুলোর বিভিন্ন পর্যায়ের খেলা দেখতে গিয়ে রমনের ঘুমের সময় গেছে পুরোপুরি উল্টাপাল্টা হয়ে। ব্যাঙ্গালুরুতে থাকলেও তার জীবন আসলে ইউরোপীয় সময়ে বন্দি হয়ে গেছে।

অবশ্য এই সমস্যা নিয়ে তার কোনো অভিযোগ নেই। রমন স্বপ্ন দেখে একজন স্কাউট হিসেবে সম্ভাব্য সর্বোচ্চ পর্যায়ে যাওয়া এবং নিজের প্রতিভা কাজে লাগানো।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর