আপনি পড়ছেন

যুক্তরাজ্যের শীর্ষ এক কোম্পানির বিরুদ্ধে দেশটির আদালতে ক্ষতিপূরণের মামলা করেছেন বাংলাদেশি এক নারী। জাহাজভাঙ্গা শ্রমিক হিসেবে কাজ করা স্বামীর মৃত্যুর জন্য সম্প্রতি মামলাটি করেন তিনি।

case ship worker in british courtমামলার নথি

ডয়চে ভেলে জানায়, চট্টগ্রামের একটি শিপইয়ার্ডে জাহাজ ভাঙার সময় পড়ে গিয়ে ২০১৮ সালের ২৩ মার্চ মারা যান খলিল মোল্লা। তার মৃত্যুর জন্য ব্রিটিশ মারান কোম্পানিকে দায়ী করেছেন স্ত্রী হামিদা বেগম।

একতা নামে যে জাহাজটি ভাঙতে গিয়ে খলিল মোল্লা মারা যান, সেটির আগের নাম ছিল মারান সেন্টারাস। মালিক ছিল মারান ইউকে লিমিটেড, ২০১৭ সালে তা বিক্রি করে দেয়া হয়।

‘জাহাজটি ভাঙার সময় এর মালিক না থাকলেও মৃত্যুর দায় এড়াতে পারে না মারান কোম্পানি।’ এমন দাবি থেকে হামিদা বেগমের করা ক্ষতিপূরণের মামলাটি গ্রহণ করে তা শুনানি করতে বলেছেন ব্রিটিশ আদালত। সেই সঙ্গে বিবাদী পক্ষের মামলাটি খারিজের আবেদন বাতিল করে দিয়ে বলা হয়েছে, এই দায় এড়ানো যায় না।

case ship worker in british court 1মামলার নথি

হামিদার পক্ষে মামলাটি লড়ছেন ব্রিটিশ আইনজীবী অলিভার হল্যান্ড। তিনি বলেন, হাইকোর্টে আমরা প্রাথমিক রায়ে জয় পেয়েছি। মারান ইউকে আপিল করেছে, সেখানেও আমরা জয় পাবো বলে আশাবাদী।

জার্মান গণমাধ্যমটি বলছে, মামলাটি জয়ের ব্যাপারে বেশ আশাবাদী হামিদা বেগম। বাস্তবে যদি তেমনটিই ঘটে, তাহলে বদলে যেতে পারে সারা বিশ্বের জাহাজভাঙ্গা শিল্পের ভবিষ্যৎ।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর