আপনি পড়ছেন

চরম হতাশার এক সফর শেষ করলো বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। একটি প্রস্তুতি ম্যাচে জয় ছাড়া আর কোনো সাফল্য নেই বাংলাদেশের। কিছু ব্যক্তিগত পারফর্ম আলো ছড়ালেও অন্ধকারে হারিয়ে গেছে দলীয় পারফর্ম।

ওয়ানডে সিরিজ:
ওয়ানডে সিরিজের তিনটি ম্যাচেই অসহায় আত্মসমর্পন করেছে বাংলাদেশ। অথচ দুটি ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের চেয়ে বাংলাদেশের সম্ভবনাই ছিলো বেশি। কিন্তু দুর্বল অধিনায়কত্ব, প্রয়োজনের সময় পারফর্মারদের নিষ্প্রভ হয়ে থাকা ডুবিয়েছে দেশকে।

ওয়ানডে সিরিজের তিন ম্যাচে সর্বোচ্চ ২৭৭ রান করেছেন দিনেশ রামদিন। এক ম্যাচে ১৬৯ রানের দুর্দান্ত একটি ইনিংস খেলেছেন তিনি। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান এসেছে ড্যারেন ব্রাভোর ব্যাট থেকে। তিনি করেছেন ১৮৪ রান। সর্বোচ্চ ১২৪। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ রান করেছেন তামিম ইকবাল। তিন ম্যাচে তার সংগ্রহ ১১৮ রান।

ওয়ানডেতে বল হাতে দুই দলের সেরা ছিলেন আল আমিন হোসেন। তিন ম্যাচে ১০টি উইকেট নিয়েছেন তিনি। দ্বিতীয় সেরা বোলার হয়েছেন রবি রামপাল। তার শিকার সাতটি উইকেট।

টেস্ট সিরিজ:
ওয়ানডে সিরিজের মতো টেস্ট সিরিজেও অসহায় আত্মসমর্পন করেছেন মুশফিকরা। দুই টেস্টের উভয়টিতেই হেরেছে বাংলাদেশ। সিরিজে ব্যাট হাতে দুর্দান্ত ছিলেন তরুণ ক্রেইগ ব্রাথওয়াইট। দুই ম্যাচের চার ইনিংসে তার ব্যাট থেকে এসেছে ৩২৪ রান। সর্বোচ্চ সংগ্রহ ২১২ রান। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান চন্দরপলের। এক সেঞ্চুরি ও দুই হাফ সেঞ্চুরিতে তার সংগ্রহ ২৭০ রান। বাংলাদেশের হয়ে ব্যাট হাতে সেরা অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। চার ইনিংসে তিনি করেছেন ১৭৯ রান। দুই হাফ সেঞ্চুরিতে তামিমের ব্যাট থেকে এসেছে ১৬৬ রান।

বল হাতে টেস্টে দুই দলের সেরা হয়েছেন সুলেমান বেন। ১৪টি উইকেট শিকার করেছেন তিনি। বাংলাদেশের হয়ে সেরা বোলার তাইজুল। অভিষেকে পাঁচ উইকেট নেয়া এই বাঁহাতি স্পিনার মোট আটটি উইকেট পেয়েছেন দুই টেস্টে।

গুগল নিউজে আমাদের প্রকাশিত খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন...

খেলাধুলা, তথ্য-প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, দেশ-বিদেশের রাজনৈতিক বিশ্লেষণ সহ সর্বশেষ খবর