advertisement
আপনি দেখছেন

অবশেষে ফুরালো আইফোনপ্রেমিদের অপেক্ষা। ১৩ অক্টোবর বাংলাদেশ সময় রাত ১১টায় শুরু হওয়া অ্যাপল ইভেন্টে নতুন আইফোনের ঘোষণা দিয়েছে অ্যাপল। একটি নয়, দুটিও নয়; আসছে নতুন চার চারটি আইফোন।

iphone 12 hits the market

আগেই ধারণা করা হয়েছিলো যে নতুন আইফোন হতে যাচ্ছে— আইফোন টোয়েলভ। শেষ পর্যন্ত এই ধারণা সত্য হয়েছে এবং বাজারে আসছে চারটি ভিন্ন সংস্করণের আইফোন টোয়েলভ। নভেম্বর থেকেই যুক্তরাষ্ট্রসহ বেশ কিছু বাজারে নতুন আইফোন পাওয়া যাবে। বাংলাদেশের বাজারে এই ফোন আসতে আসতে হয়তো কয়েক সপ্তাহ সময় বেশি লাগবে।

নতুন চারটি আইফোনের সংস্করণ হলো— আইফোন টোয়েলভ মিনি, আইফোন টোয়েলভ, আইফোন টোয়েলভ প্রো এবং আইফোন টোয়েলভ প্রো ম্যাক্স। আইফোন টোয়েলভ মিনির দাম শুরু হচ্ছে ৬৯৯ ডলার থেকে, আইফোন টোয়েলভ ৭৯৯ ডলার থেকে, আইফোন টোয়েলভ প্রোর দাম শুরু হচ্ছে ৯৯৯ ডলার থেকে এবং প্রো ম্যাক্সের দাম শুরু হচ্ছে ১০৯৯ ডলার থেকে। ফোনগুলোর দামের পার্থক্য তৈরি হবে সংস্করণ ও ধারণক্ষমতার ভিন্নতার কারণে।

এবারের প্রতিটি আইফোন-ই ফাইভ-জি নেটওয়ার্ক সমর্থনে সক্ষম। প্রো ও প্রো ম্যাক্স মডেলের ধারণ ক্ষমতা হলো— ১২৮, ২৫৬ ও ৫১২ জিবি। প্রো’র পর্দার আকৃতি ৬.১ ইঞ্চি এবং প্রো ম্যাক্সের পর্দার আকৃতি ৬.৭ ইঞ্চি। অন্য দিকে আইফোন টোয়েলভ মিনির পর্দার আকৃতি ৫.৪ ইঞ্চি এবং আইফোন টোয়েলভের পর্দার আকৃতি হলো ৬.১ ইঞ্চি।

features of iphone 12 and iphone 12 mini

সবগুলো ফোনেই ব্যবহার করা হয়েছে অ্যাপলের এ-ফোরটিন বায়োনিক চিপ। অ্যাপলের দাবি অনুসারে এই চিপই বর্তমানে স্মার্টফোনের জগতে সবচেয়ে বেশি গতি প্রদানে সক্ষম। প্রতিটি আইফোনে ব্যবহার করা হয়েছে এইচডিআর ডিসপ্লে। প্রতিটি আইফোনই যে কোনো রকমের তরল, পানি ও ধুলাবালি প্রতিরোধক। অর্থাৎ হঠাৎ আইফোনের চা-কফি পড়ে গেলে, বৃষ্টিতে ভিজলে, পানিতে পড়ে গেলে বা ধুলোর মধ্যে পড়ে গেলে কোনোই সমস্যা হবে না।

আইফোন টোয়েলভ এবং এর প্রো মডেলগুলোতে সবচেয়ে উন্নতি হয়েছে ক্যামেরার দিক থেকে। বিশেষ করে প্রো মডেলগুলোর ক্যামেরা এতোটাই উন্নত করা হয়েছে, অ্যাপলের দাবি পৃথিবীতে কোনো স্মার্টফোনে এখন পর্যন্ত এ ধরনের ক্যামেরা যুক্ত করা হয়নি। আইফোনে প্রথমবারের মতো এসেছে ইন-ডেপথ ক্যামেরা টেকনোলজি। যার মাধ্যমে যে কোনো ছবির আরো বিস্তারিত তথ্য জানা সম্ভব হবে।

features of iphone 12 pro and pro max

অন্ধকার, তীব্র আলো কিংবা গতিময় সাবজেক্ট— সব পরিস্থিতিতেই আইফোনের ক্যামেরা কাজ করবে অসাধারণ দক্ষতায়। মঙ্গলবার রাতে অনুষ্ঠিত হওয়া ইভেন্টে অ্যাপলের সিইও টিম কুক দাবি করলেন, আইফোন টোয়েলভ প্রো’র ক্যামেরা দিয়ে চলচ্চিত্রও নির্মাণ করা সম্ভব হবে। তার মতে, চলচ্চিত্র তৈরির জন্য ক্যামেরার পেছনে যে বিপুল খরচ হয়, তা মেটানো সম্ভব কেবল আইফোনের ক্যামেরা দিয়েই। তার দাবি সত্য হলে, আইফোন টোয়েলভ প্রো হতে যাচ্ছে ফটোগ্রাফার, সিনেমাটোগ্রাফারদের ফোন।

বিশ্বের একশটির বেশি মোবাইল অপারেটরদের সঙ্গে একযোগে কাজ করে ফাইভ-জির জন্য নতুন আইফোনের সবগুলো সংস্করণকে আরো বেশি শক্তিমান করে তোলা হয়েছে। টিম কুক দাবি করেন, যে কোনো ব্যান্ডের ফাইভ-জিতেই কাজ করবে নতুন আইফোন।

নতুন আইফোনগুলোতে ব্যবহার করা হয়েছে পৃথিবীর সবচেয়ে কঠিন গ্লাস। ফলে হাত থেকে পড়লেই গ্লাস ফেটে যাওয়ার ভয় এবার কিছুটা হলেও কম হওয়ার কথা। অ্যাপলের দাবি, পৃথিবীতে এর আগে কোনো আইফোনে এ রকম কঠিন গ্লাস ব্যবহার করা হয়নি।

শুধু গ্লাস নয়, আইফোন টোয়েলভের মূল বডিতে ব্যবহার করা হয়ে সিরামিক শিল্ড— যা অন্য যে কোনো আইফোনের চেয়ে নতুন আইফোনকে আরো বেশি মজবুত ও দৃঢ় করতে সক্ষম হয়েছে। গ্লাস ফেটে যাওয়ার ভয়ের পাশাপাশি, ফোনের বডি ভেঙে যাওয়ার আশঙ্কাও তাই সামান্যই।

নতুন আইফোনের মাধ্যমে অ্যাপল ম্যাগসেইফ নামের নতুন প্রযুক্তিও উন্মুক্ত করলো। এই প্রযুক্তির মাধ্যমে ওয়ারলেস চার্জার বা অন্যান্য অ্যাকসেসরিস আরো সহজে চৌম্বুক শক্তির মাধ্যমে আইফোনের সাথে সংযুক্ত হবে।

আইফোন প্রো এবং প্রো ম্যক্সে মূল বডির সিরামিক শিল্ডের সাথে যুক্ত করা হয়েছে আরো অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা, যা আইফোন সাধারণভাবে ভাঙনকে প্রায় অসম্ভব করে তুলেছে।

নতুন আইফোন পরিচালিত হবে আইওএস ফোরটিনের মাধ্যমে। কিছুদিন আগে অ্যাপল আইফোনের নতুন অপারেটিং পদ্ধতি উন্মুক্ত করেছে। আইফোন সিক্স এস থেকে আইফোন টোয়েলভ পর্যন্ত সবগুলো মডেলই আইওস ফোরটিনে আপগ্রেড করা যাবে। তবে এর চেয়ে পুরোনো আইফোন নতুন অপারেটিং পদ্ধতির আপডেট পাবে না।

sheikh mujib 2020