advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 14 মিনিট আগে

তিন মাসে আগে চাঁদে হারিয়ে যাওয়া ভারতের ‘চন্দ্রযান-২’ এর ল্যান্ডার ‘বিক্রম’-এর ধ্বংসাবশেষের খোঁজ পেল নাসা। মঙ্গলবার দেয়া এক বিবৃতিতে এ তথ্য দিয়েছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা। ধ্বংসাবশেষের ছবিসম্বলিত একটি টুইটও করেছে তারা।

vikram 2 nasaনাসার দেইয়া ছবিতে বিক্রমের ধ্বংসাবশেষ

প্রকাশিত ওই ছবিতে সবুজ ও নীল রঙের বেশ কয়েকটি বিন্দু সংযোজন করেছে নাসা। তারা জানায়, বড় নীল বিন্দুর স্থানটায় আছড়ে পড়েছিলো বিক্রম। আর সবুজ বিন্দুগুলো হলো তারই ধ্বংসাবশেষ। আর চন্দ্রপৃষ্ঠে বিধ্বস্ত হয়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আশেপাশে যে এলাকাগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সেগুলোকেও নীল বিন্দু দিয়ে চিহ্নিত করা হয়।

চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে আছড়ে পড়ে অন্তত ২৪ টুকরো হয়ে যায় বিক্রম। প্রায় কয়েক কিলোমিটার জুড়ে ছড়িয়ে থাকা বিক্রমের সেই ধ্বংসাবশেষের ছবি তুলেছিলো নাসার ‘লুনার রিকনোসেন্স অর্বিটার’ (এলআরও)। গত ২৬ সেপ্টেম্বর তোলা ছবিগুলো নিয়ে একটা মোজাইক ছবি প্রকাশ করে নাসা বিক্রমের ধ্বংসাবশেষ চিহ্নিত করার জন্য বিশ্ববাসীকে আমন্ত্রণ জানায়। ওই ছবির সূত্র ধরেই বিক্রমের খোঁজ শুরু হয়।

ভারতীয় মেকানিক্যাল ও কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার শানমোগা সুব্রামানিয়ান জানান, ধ্বংসাবশেষ চিহ্নিত করতে তিনি নাসার একটি ছবি পরীক্ষা করেছেন। বিবৃতিতে নাসা জানায়, সুব্রামানিয়ানই প্রথমে বিধ্বস্ত হওয়ার মূল জায়গা থেকে প্রায় ৭৫৯ মিটার উত্তরপশ্চিমে ধ্বংসাবশেষগুলো চিহ্নিত করেন।

সুব্রামানিয়ান বলেন, বিধ্বস্ত হওয়ার জায়গাটি খুঁজে পেতে কয়েক দিন কাজ করতে হয়েছে তাকে। তিনি অবতরণ এলাকার উত্তরে সন্ধান চালিয়ে ছোট একটি বিন্দু খুঁজে পান।

vikram 2অবতরণ এলাকার উত্তরে সন্ধান চালিয়ে ছোট একটি বিন্দু খুঁজে পান ভারতীয় বিজ্ঞানী শানমোগা সুব্রামানিয়ান

পরে ওই এলাকায় লুনার রিকনোসেন্স অর্বিটারের তোলা গত ৯ বছরের ছবির সাথে নতুন ছবিটির তুলনা করে আমি ধ্বংসাবশেষ চিহ্নিত করে নাসার সাথে যোগাযোগ করেন তিনি।

৩৩ বছর বয়সী এ প্রকৌশলী মঙ্গলবার টুইটারে তার আবিষ্কারের কথা ঘোষণা করেন। পরে নাসা ওই এলাকায় আরও অনুসন্ধান চালিয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়। নাসা জানায়, সুব্রামানিয়ানের ফলাফল পেয়ে তাদের একটি দল আগের ও পরের ছবি তুলনা করে বিষয়টি নিশ্চিত করে।

চাঁদে পানির সন্ধান চালাতে রোভার মোতায়েনের জন্য দক্ষিণ মেরুতে চূড়ান্ত অবতরণের সময় বিধ্বস্ত হয়েছিল ভারতের মহাকাশ গবেষণা সংস্থার যান ‘বিক্রম’। এ অভিযান সফল হলে চাঁদের বুকে যান অবতরণ করা চতুর্থ এবং রোবোটিক রোভার পরিচালনাকারী তৃতীয় দেশ হতো ভারত।

sheikh mujib 2020