advertisement
আপনি দেখছেন

মহাকাশে স্যাটেলাইট বিধ্বংসী ‘অস্ত্রে’র পরীক্ষা চালিয়েছে রাশিয়া। সম্প্রতি দেশটির বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ তুলেছে যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র। দেশ দুটির সামরিক বাহিনী পৃথক বার্তায় অভিযোগ করে, ‘কসমস ২৫৪৩’ নামের একটি রুশ স্যাটেলাইট থেকে এ মহাকাশ-অস্ত্র পরীক্ষা চালানো হয়েছে।

space waponরাশিয়ার বিরুদ্ধে নতুন ‘মহাকাশ-অস্ত্র’ পরীক্ষার অভিযোগ- প্রতীকী ছবি

গতকাল বৃহস্পতিবার মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর অভিযোগ, গত ১৫ জুলাই ‘কসমস ২৫৪৩’ রুশ স্যাটেলাইট থেকে এমন একটি বস্তু মহাকাশের কক্ষপথে নিক্ষেপ করা হয়েছে, যা অন্য স্যাটেলাইটকে আঘাত করতে সক্ষম।

প্রতিবেদনে এও বলা হয়, এই প্রথমবারের মতো রাশিয়ার বিরুদ্ধে এমন অস্ত্র পরীক্ষার অভিযোগ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

এক বার্তায় মার্কিন স্পেস অপারেশন্সের স্পেস ফোর্সের প্রধান জেনারেল জন ডব্লু রেমন্ড বলেন, এর আগেও বেশ কয়েকবার স্যাটেলাইট থেকে মহাকাশে অস্ত্র পরীক্ষা করেছে রাশিয়া। এ নিয়ে তারা চলতি বছরের শুরুতে উদ্বেগও প্রকাশ করেছিলেন। তখন একটি মার্কিন সরকারি স্যাটেলাইটের কাছে এ পরীক্ষাটি করেছিলো রাশিয়া।

cnn newsমার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের প্রতিবেদন

তিনি আরো বলেন, এবার রুশ স্যাটেলাইটকে লক্ষ্য করে বস্তুটি ছোড়ার কারণে ‘কসমস ২৫৪৩’ উপগ্রহটির কার্যক্রম নিয়ে প্রশ্ন জাগছে।

অপর এক বার্তায় ব্রিটিশ মহাকাশ অধিদপ্তরের প্রধান এয়ার ভাইস মার্শাল হার্ভি স্মিথ বলেন, মহাকাশে এ ধরনের পরীক্ষা চালানো সকলের জন্যই হুমকি। এতে শান্তিপূর্ণভাবে মহাকাশ ব্যবহার ব্যাহত হয়। কারণ এসব পরীক্ষার ফলে মহাকাশে যে বর্জ্য তৈরি হয়, তা অন্য স্যাটেলাইটকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। সবাইকে মনে রাখতে হবে, সারা বিশ্বই এসব স্যাটেলাইটের ওপর নির্ভরশীল।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালে ‘কসমস ২৫৪৩’ স্যাটেলাইটটিকে মহাকাশের কক্ষপথে পাঠায় রাশিয়া। তখন দেশটির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছিলো, এটি একটি পরিদর্শক উপগ্রহ। তবে বর্তমানে এর কার্যক্রম নিয়ে প্রশ্ন তুলছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দুই দেশ।

sheikh mujib 2020