advertisement
আপনি দেখছেন

সবচেয়ে রহস্যময় গ্রহের মধ্যে শীর্ষে থাকা মঙ্গলে সম্প্রতি মনুষ্যবিহীন রোবোটিক যান চালায় মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। এতে থাকা আস্ত একটি কম্পিউটার ‘পার্সিভিয়ারেন্স’ ঘুরে বেড়াচ্ছে মঙ্গলে।

computer on marsমঙ্গলের বুকে পারসিভারেন্স

এমন দুই মাইলফলক অর্জনের পর এবার মঙ্গলে অক্সিজেন তৈরির কথা জানালো নাসা। পৃথিবীর বাইরে অন্য কোনো গ্রহে অক্সিজেন উৎপাদনের ঘটনা এটিই প্রথম।

পারসিভারেন্সের সামনের ডান দিকে ১৭ দশমিক ১ কিলোগ্রাম ভরের একটি যন্ত্র লাগানো রয়েছে। মক্সি (দ্য মার্স অক্সিজেন ইন-সিটু রিসোর্স ইউটিলাইজেশন এক্সপেরিমেন্ট) নামের যন্ত্রটি প্রথমবারের মতো ৫ গ্রাম অক্সিজেন তৈরি করেছে।

এই পরিমাণ অক্সিজেন দিয়ে মঙ্গলের বুকে ১০ মিনিটের মতো শ্বাস নিতে পারবেন একজন নভোচারী! নাসার গবেষকেরা বলছেন, ভবিষ্যতে ঘণ্টায় ১০ গ্রাম অক্সিজেন তৈরি করার মতো করে মক্সিকে ডিজাইন করা হয়েছে।

mars nasaমঙ্গলে নাসার যান

জিনিউজের খবরে বলা হয়, মঙ্গলের বায়ুমণ্ডলে ৯৬ শতাংশই কার্বনডাইঅক্সাইড। এই কার্বনডাইঅক্সাইডকে ব্যবহার করে তৈরি করা হয় অক্সিজেন।

এর আগে ১৮ ফেব্রুয়ারি মধ্যরাতে পার্সিভিয়ারেন্সের রোভার ও হেলিকপ্টার ‘ইনজিনিটি’ মঙ্গলপৃষ্ঠে সফলভাবে অবতরণ করে। পরে লাল গ্রহটির কয়েক হাজার ছবি তুলে পৃথিবীতে পাঠায় সেটি।

এ ছাড়া প্রথমবারের মতো মঙ্গলের কয়েক সেকেন্ডের অডিও পাঠায় পার্সিভিয়ারেন্স। মাইক্রোফোনে ধারণ করা ক্লিপটিতে গ্রহের বাতাস এবং রোভার অপারেটিংয়ের শব্দ শোনা যায়।