advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 27 মিনিট আগে

২০১৬ সালের মার্কিন নির্বাচনে রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন প্রচার, বিদেশি রাষ্ট্রের হস্তক্ষেপ ও ভুয়া তথ্য প্রচার নিয়ে বেশ ঝামেলায় আছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক। এ বিষয়ে সম্প্রতি ফেসবুকের প্রধান মার্ক জাকারবার্গের কড়া সমালোচনা করেছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হিলারি ক্লিনটন।

facebook hilari jakarbarg

তিনি বলেন, ফেসবুক থেকে ভুয়া তথ্য মুছতে কখনোই কোন উদ্যোগ নেননি জাকারবার্গ। এমনকি তার এরূপ সিদ্ধান্তকে 'স্বৈরাচারী' বলেও উল্লেখ করেন হিলারি।

গত শনিবার মার্কিন সাময়িকী দ্য আটলান্টিককে দেয়া এক সাক্ষাতকারে হিলারি বলেন, মাঝেমধ্যে তার মনে হয় যেন তিনি বিদেশি কোন শক্তির বিরুদ্ধে দর কষাকষি করছেন এবং সেই শক্তি অনেক বেশি শক্তিশালী।

তিনি আরো বলেন, ফেসবুকের এমন কিছু মারাত্মক ক্ষমতা আছে, যেগুলো মানুষ সবেমাত্র বুঝতে শুরু করেছে।

এদিকে ফেসবুক প্রমান করার চেষ্টা করছে, মার্কিন নির্বাচনে তাদের মাধ্যমে বিদেশি রাষ্ট্রের কোন প্রকার হস্তক্ষেপ ছিল না। রাজনৈতিক বিজ্ঞাপন প্রচারেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেনি তারা। এমনকি রাজনৈতিক বক্তব্যের সত্য-মিথ্যা যাচাই করার ব্যাপারেও অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

এ বিষয়ে ফেসবুকের যুক্তি হলো, এই ধরনের নিষেধাজ্ঞা মানুষের বাক স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ।

কিন্তু ভুয়া তথ্য প্রসারে ফেসবুকের ভূমিকা সামনে এনে হিলারি বলেন, তারা নিজেদেরকে বাক স্বাধীনতা ও সেন্সরশিপ নিয়ে যুক্তিতর্কের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রেখেছে। কিন্তু এ ধরনের কাজ তারা বাণিজ্যিক স্বার্থে করছে বলেই মনে করেন তিনি।

উল্লেখ্য, আগামী মার্চে ভিডিও স্ট্রিমিং সেবা হুলুতে মুক্তি পাবে হিলারি ক্লিনটনের জীবনীনির্ভর প্রামাণ্যচিত্র সিরিজ ‘হিলারি’। এ উপলক্ষ্যে গত শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের পার্ক সিটিতে চলমান সানডান্স চলচ্চিত্র উৎসবে যোগ দেন তিনি।

sheikh mujib 2020