advertisement
আপনি দেখছেন

ডিজিটাল যুগে অ্যান্টিট্রাস্ট আইন কীভাবে প্রয়োগ করা হবে- এ নিয়ে গতকাল বুধবার মার্কিন কংগ্রেসের এক কমিটির শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। এতে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অংশ নেন চার মার্কিন টেক জায়ান্ট গুগল, ফেসবুক, অ্যাপল ও অ্যামাজনের প্রধান নির্বাহীরা (সিইও)।

four tech gaintমার্কিন কংগ্রেসে শুনানিতে একসঙ্গে চার টেক জায়ান্ট

আজ বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ডয়েচে ভেলের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রথমবারের মতো কোথাও এই চার প্রতিষ্ঠানের সিইও'কে একসঙ্গে দেখা গেছে। এর আগে কখনোই তাদের একসঙ্গে কোনো অনুষ্ঠান বা মিটিং বা অন্য কোথাও দেখা যায়নি।

মার্কিন এ চার টেক জায়ান্টের প্রধান নির্বাহীরা হলেন- গুগলের সিইও সুন্দর পিচাই, ফেসবুকের সিইও মার্ক জাকারবার্গ, অ্যাপলের সিইও টিম কুক এবং অ্যামাজনের সিইও জেফ বেজোস।

শুনানিতে মার্কিন আইনপ্রণেতারা অভিযোগ করেন, এই চার প্রযুক্তি কোম্পানি অনলাইনে একাধিপত্য ধরে রেখেছে। যার ফলে অন্য কোম্পানিগুলোর প্রতিযোগিতার সুযোগ নষ্ট হচ্ছে। পাশাপাশি বাজার দখল করে রাখায় তাদের কারণে ভোক্তারাও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তাই সমালোচকরা দীর্ঘদিন ধরে অনলাইনে কার্যক্রম পরিচালনায় কঠোর বিধিনিষেধ ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণে কঠোর আইন প্রণয়ণের দাবি জানিয়ে আসছেন।

facebook google amazon appleচার মার্কিন প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান

তবে শুনানিতে নিজেদের পক্ষে তথ্যসহ যুক্তি তুলে ধরে প্রতিষ্ঠান চারটির সিইওরা বলেন, তারা অন্য কোম্পানিগুলোকে প্রতিযোগিতার জন্য উৎসাহিত করছেন। পাশাপাশি তারা ভোক্তাদের অধিকারও সংরক্ষণ করছেন।

শুনানিতে কিছু বিষয়ে নিজেদের পক্ষে যুক্তি তুলে ধরতে পারলেও অনেক বিষয়ে তারা সরসারি উত্তর দিতে পারেননি।

যেমন- সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইনস্টাগ্রাম কিনে নেওয়ার বিষয়ে কিছু প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয় ফেসবুকের সিইও মার্ক জাকারবার্গকে। খুচরা বিক্রেতাদের তথ্য চুরি করে নিজেদের পণ্য তৈরির বিষয়ে প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয় অ্যামাজনের সিইও জেফ বেজোসকে। অ্যাপলের সিইও টিম কুককে মুখোমুখি হতে হয় বিভিন্ন ডিভাইসে নিজেদের অ্যাপ উপস্থাপনের জন্য অ্যাপলের নিজস্ব পেমেন্ট ব্যবস্থা ব্যবহারে বাধ্য করার বিষয়ে। গুগলের সিইও সুন্দর পিচাইকে মুখোমুখি হতে হয় থার্ড পার্টির তথ্য নিজেদের বলে চালিয়ে দেওয়া ও নিজেদের প্রয়োজনে সুবিধাজনকভাবে ব্যবহার করার বিষয়ে।

sheikh mujib 2020