advertisement
আপনি দেখছেন

মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় এক দশকের মধ্যে এবার সবচেয়ে বড় বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে চীনা প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে। চলতি বছরের প্রথমার্ধে প্রতিষ্ঠানটির আয় কমেছে প্রায় ৩০ শতাংশ। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিষেধাজ্ঞার পর ফোন ব্যবসার একটা অংশ বিক্রি করে দেয়ায় আয় কমেছে।

huawei flagship phonesহুয়াওয়ের স্মার্টফোন, ফাইল ছবি

বিবিসির খবরে বলা হয়, নিষেধাজ্ঞার কারণে মার্কিন প্রযুক্তি ব্যবহার হয়েছে এমন সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার কিনতে বেশ সমস্যা হচ্ছে হুয়াওয়ের। এর ফলে প্রতিষ্ঠানটির ভোক্তা ইলেকট্রনিক্স শাখার আয় কমেছে  ৪৭ শতাংশ।

চলতি বছরের শুরুতে চিপ সংকটে পড়ার কথা জানিয়েছিলেন হুয়াওয়ের ভোক্তা ডিভাইস প্রধান রিচার্ড ইউ চ্যালেঞ্জ। মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় ব্যবসায়ের পরিচালনা ও দৈনন্দিন কাজে বড় ধরনের সমস্যায় পড়ার কথাও সে সময় বলেন তিনি। এ ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ কিছু বিষয় তুলে ধরা হয়েছে বিবিসির প্রতিবেদনে।

us vs chinaযুক্তরাষ্ট্র ও চীনের পতাকা

প্রতিবেদনে বলা হয়, নিষেধাজ্ঞার পর গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করতে পারছে না হুয়াওয়ে। ফলে বাধ্য হয়ে নিজেদের তৈরি হারমনি ওএস ব্যবহার করতে হচ্ছে প্রতিষ্ঠানটিকে। এর বাইরেও বেশ কিছু যন্ত্রাংশের ক্ষেত্রে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে চীনা প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানটিকে।

চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে হুয়াওয়ে সবচেয়ে বড় ধাক্কা খেয়েছে আফ্রিকা, চীন, ইউরোপ ও মধ্যপ্রাচ্যে। গবেষণা প্রতিষ্ঠান কাউন্টারপয়েন্টের এক প্রতিবেদনে এমনটাই উঠে এসেছে।

স্মার্টফোনের পাশাপাশি হুয়াওয়ে টেলিকম যন্ত্রাংশ ব্যবসায়ও ধাক্কা লেগেছে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার। প্রতিষ্ঠানটির এই শাখার আয় কমার পরিমাণটাও উল্লেখযোগ্য। যদিও এর পেছনে নিজ দেশ চীনে ৫জি স্থাপনে ধীরগতিকে কারণ হিসেবে দেখানোর চেষ্টা করছে হুয়াওয়ে।