advertisement
আপনি পড়ছেন

দেশে ডিজিটাল অর্থনীতির প্রসারে সহায়ক পরিবেশ তৈরি এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির উন্নয়নে বাংলাদেশকে ২৯ কোটি ৫০ লাখ ডলার ঋণ দিচ্ছে বিশ্ব ব্যাংক। ‘এনহেন্সিং ডিজিটাল গভার্নমেন্ট অ্যান্ড ইকোনমি’ প্রকল্পের মাধ্যমে বর্তমান বিনিময় হার অনুযায়ী বাংলাদেশি মুদ্রায় এর পরিমাণ প্রায় ২ হাজার ৫৩৭ কোটি টাকা।

world bank 1বিশ্ব ব্যাংক

বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব ফাতিমা ইয়াসমিন এবং বিশ্ব ব্যাংকের আবাসিক প্রতিনিধি মার্সি মিয়াং টেম্বন গতকাল রোববার এই ঋণ চুক্তিতে চুক্তিতে সই করেন।

চতুর্থ শিল্প বিপ্লব মোকাবেলার কৌশল নির্ধারণ ও কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন এবং প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ জনবল তৈরি ও চাকরির সুযোগ সৃষ্টি করা হবে এই টাকায়। বাংলাদেশ সরকারের ডিজিটাল সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য একটি ডিজিটাল লিডারশিপ অ্যাকাডেমি স্থাপনের মাধ্যমে ডিজিটাল অর্থনীতি সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ ও গবেষণার সুযোগও সৃষ্টি করা হবে এই ঋণের অর্থে।

bd govt logoবাংলাদেশ সরকার

পাশাপাশি সরকারি ও বেসরকারি খাতের ডিজিটাল সক্ষমতা বৃদ্ধি করে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের ডিজিটালাইজেশন করা এবং দেশীয় ও আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানকে বাংলাদেশে বিনিয়োগে উৎসাহ যোগাতেও ব্যয় হবে এই ঋণের অর্থ।

বিপরীতে ইউরোপীয় আন্তঃব্যাংক সুদ হারের সঙ্গে শূন্য দশমিক ৯৮ শতাংশ সুদ হারসহ সব মিলিয়ে প্রায় ২ শতাংশ সুদসহ ৩৪ বছরে এই ঋণ পরিশোধ করতে হবে। এর মধ্যে ঋণের রেয়াতকাল ধরা হয়েছে চার বছর।

শেরেবাংলা নগরের ইআরডি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত চুক্তি অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ‘এনহেন্সিং ডিজিটাল গভার্নমেন্ট অ্যান্ড ইকোনমি’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় এই অর্থায়ন করবে বিশ্ব ব্যাংক। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের এ প্রকল্পটি ২০২৬ সালের মধ্যে বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল।