advertisement
আপনি পড়ছেন

করোনাকালে বিয়ের চিরচেনা রূপ বদলে গেছে। কিন্তু সব কিছুর মতো বিয়ে তো আর ভার্চুয়ালি সম্ভব নয়। তবে সেই অসম্ভবকেই সম্ভব করতে চলেছে পাশের দেশ ভারতের এক যুগল। মেটাভার্সেই নিজেদের বিবাহ পরবর্তী অনুষ্ঠান সেরে ফেলতে যাচ্ছেন তারা।

metaverse marriage in indiaভারতে প্রথম মেটাভার্স বিয়ে

মার্ক জাকারবার্গ ফেসবুকের প্যারেন্ট প্রতিষ্ঠান নাম বদলে মেটা রাখার পর মেটাভার্স কমবেশি সবার কাছেই পরিচয় হয়ে উঠেছে। এবার এই মেটাভার্সেই নিজেদের বিয়েটা সেরে ফেলতে যাচ্ছেন তামিলনাডুর এই যুগল।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, দিনেশ এসপি ও জনগানন্দিনি রামাস্বামী ফেব্রুয়ারি মাসের প্রথম রোববার বিয়ে করতে যাচ্ছেন। বিয়ে হবে তামিলনাড়ুর শিবলিঙ্গপুরম গ্রামে। তবে তারা রিসিপশন বা বউভাত সারবেন ভার্চুয়ালি।

metaverse marriage in india innerভারতে প্রথম মেটাভার্স বিয়ে

বিয়ে হয়ে যাওয়ার পর তারা তাদের ল্যাপটপ খুলবেন। তারপর একটি ভার্চুয়াল ভেন্যুতে তারা প্রবেশ করবেন। হ্যারি পটারপ্রেমী এই যুগলের থিম হলো হগওয়ার্টস। এই ভার্চুয়াল থিমে ধীরে ধীরে বিভিন্ন জায়গা থেকে যুক্ত হবেন তাদের বন্ধু ও অন্যান্য পরিজনরা।

দীনেশ ক্রিপ্টো ও ব্লকচেন টেকনোলজি নিয়ে বহুদিন ধরে কাজ করছে। ব্লকচেইন হলো মেটাভার্সের একদম প্রাথমিক অংশ। তার বিয়ে যখন ঠিক হয়ে যায় তখনই সে ঠিক করে এই টেকনোলজিকে তার বিয়েতে কাজে লাগাবেন। হবু স্ত্রীকে জানাতে তিনিও রাজি হন। এরপর এই সিদ্ধান্ত নেন এই যুগল। নিজেদের বিয়েকে ভারতের প্রথম মেটাভার্স বলছেন দীনেশ।

মজার ব্যাপার হলো এই যুগলের পরিচয়টাও হয়েছে ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্ম ইনস্টাগ্রামে। প্রণয় পর্বেও যে অনলাইনের বড় অবদান তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। বিয়ে পরবর্তী অনুষ্ঠানটাও মেটাভার্সে হওয়ায় ওই যুগলকে পুরোপুরি ভার্চুয়াল যুগল বলা যেতেই পারে।

এ দিকে তাদের বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া অতিথিরা ভার্চুয়াল খাবার খেতে না পারলেও ভার্চুয়ালি উপহার দিতে পারবেন। সেজন্য গুগল পে কিংবা ক্রিপ্টো কারেন্সি তো রয়েছেই।