advertisement
আপনি পড়ছেন

ভ্যাট আদায় নিয়ে মুখোমুখি অবস্থানে দাঁড়িয়েছে বেসরকারি মোবাইল অপারেটর রবি ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। বোর্ডের পক্ষে থেকে রবি’র বিরুদ্ধে প্রায় ১৮ কোটি টাকা ভ্যাট ফাঁকির অভিযোগ আনা হয়েছে। এই সূত্র ধরে ইতোমধ্যে রবির ব্যাংক হিসাব জব্দ করে নির্দেশনা জারি করেছে এনবিআর।

robi logo

ব্যাংক হিসাব জব্দ করতে ভ্যাট এলটিইউ কমিশনার মতিউর রহমান স্বাক্ষরিত একটি চিঠি দেশের সকল তফসিলি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বরাবর পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

এনবিআর সূত্রে জানা গেছে, রবির কাছে বিশাল অঙ্কের ভ্যাট পাওনা রয়েছে এনবিআর। পাওনা আদায়ে এখন পর্যন্ত রবিকে পাঁচটি চিঠি দিয়েছে সংস্থাটি। কিন্তু কোনো লাভ হয়নি। পাঁচটি চিঠিতে রবির কাছে ভ্যাট বাবদ মোট ৯২৪ কোটি ৬ লাখ ৩৫ হাজার ৫২৯ টাকা দাবি করে এনবিআর।

এদিকে ভ্যাট ফাঁকি সংক্রান্ত একটি মামলায় সোমবার রবিকে দোষী সাব্যস্ত করে দ্রুত ১৮ কোটি টাকা এনবিআরকে পরিশোধের নির্দেশ দেন উচ্চ আদালত। তবে এ অর্থ আদায়ে রবি এখন পর্যন্ত কোনো সাড়া দেয়নি।

এ ব্যাপারে এলটিউ ভ্যাট কমিশনার মতিউর রহমান বলেন, রবির প্রধান নির্বাহী (সিও) আমাকে বার বার এসএমএস দিচ্ছেন। তারা আমাকে হুমকি দিচ্ছেন যে, বাধ্য করে ভ্যাট আদায় করা যাবে না। জোর করলে নাকি রবি ভ্যাট আদায় করবে না। কিন্তু বাধ্য করাই এনবিআরের কাজ। রবি ভ্যাট দিতে বাধ্য।

তিনি বলেন, রবিকে সরকারের প্রাপ্য ভ্যাট পরিশোধে বাধ্য করা হবে। তা না হলে আমরাই অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা নিয়ে সরকারি কোষাগারে জমা দেব।

এদিকে এনবিআরের পাওনা সম্পর্কিত বিষয়ে কথা বলার জন্য রবির বেশ কয়েকজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা এ ব্যাপারে কথা বলতে অস্বীকার করেন।