advertisement
আপনি পড়ছেন

চোরাই ও অবৈধ পথে মোবাইল ফোন আমদানি রোধ করতে এবং ব্যবহারকারীদের চুরি যাওয়া সেট বন্ধ করে দেয়ার সুবিধা দিতে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) এনওসি অটোমেশন অ্যান্ড আইএমইআই ডাটাবেজ (এনএআইডি) চালু করেছে। মঙ্গলবার ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বিটিআরসি ভবনে এ সেবা উদ্বোধন করেন।

mobile phone dump

বিটিআরসির তত্ত্বাবধানে ও বাংলাদেশ মোবাইল ফোন ইমপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমপিআইএ) আর্থিক সহায়তায় এনএআইডি চালু করা হয়েছে।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, এনএআইডি চালু হওয়ায় সরকার লাভবান হবে। চোরাই ও অবৈধ পথে ফোন সেট আসা বন্ধ হবে। সেই সাথে চুরি হওয়া মোবাইল ফোন বন্ধ করে দেয়া যাবে। পাশাপাশি এ প্রযুক্তি ব্যবহার করে এনবিআর ও বিটিআরসি ঘরে বসেই অবৈধ পথে আসা সেট শনাক্ত করতে পারবে।

মোবাইল অপারেটরদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘ফাইভ-জি চালু করতে আমরা পিছপা হব না। আপনারা এ বিষয়ে প্রস্তুতি নিন।’

এ সময় বিটিআরসির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জহুরুল হক বলেন, এনএআইডি চালু হওয়ার ফলে সরকারের প্রচুর পরিমাণে রাজস্ব বৃদ্ধি পাবে। অবৈধভাবে ফোন আমদানি ও চুরি বন্ধ হবে।

বিটিআরসির মহাপরিচালক (স্পেকট্রাম) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাছিম পারভেজ জানান, প্রতিবছর বিটিআরসির অনুমোদন নিয়ে বৈধভাবে দুই কোটি ৭৬ লাখ হ্যান্ডসেট আসে। আর বাজারে থাকা সেটের ২৫ থেকে ৩০ শতাংশ আসে অবৈধভাবে। এতে সরকার প্রতি বছর এক হাজার থেকে বার শ' কোটি টাকার রাজস্ব হারাচ্ছে।

তিনি আরও জানান, আইএমইআই ডাটাবেজে ৬০ শতাংশ হ্যান্ডসেটের নম্বর অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে এবং বাকিগুলো এখনও অন্তর্ভুক্ত করা যায়নি।

অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব অশোক কুমার বিশ্বাস ও বিএমপিআইএ সভাপতি রুহুল আলম আল মাহবুবসহ ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তা এবং মোবাইল অপারেটরগুলোর সিইও ও প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।