advertisement
আপনি পড়ছেন

দীর্ঘদিন ধরেই সাধারণ মানুষের মনে ইন্টানেটের গতি নিয়ে নানা প্রশ্ন ছিলো। সাধারণ মানুষের মনের সেই শঙ্কাই সত্যি হলো। সম্প্রতি বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের এক নিরীক্ষায় দেখা গেছে, দেশের কোন মোবাইল অপারেটরই ফোরজি’র জন্য তাদের ঘোষিত নির্ধারিত গতি দিতে পারেনি।

4g internet

দেশের চার বিভাগের মোট ১৮ জেলায় চালানো মোবাইল ফোন অপারেটরদের সেবা পরিমাপ করে এমন তথ্যই পেয়েছে বিটিআরসি। ঢাকা জেলায় চালানো পরীক্ষায় দেখা যায়, রাজধানীকে কেউই ফোরজি’র জন্য ঘোষিত ডাউনলোডের গতি সাত এমবিপিএস দিতে পারেনি। এরপর খুলনা, বরিশাল, রাজশাহী এবং রংপুর বিভাগের বিভিন্ন এলাকাতেও সন্তোষজনক ফলাফল পাওয়া যায়নি। ড্রাইভ টেস্ট পরিচালনায় দেখা গেছে, মোবাইল ফোনের অপারেটররা সবচেয়ে বাজে সেবা দিচ্ছে মূলত বরিশালে।

নীতিমালা অনুযায়ী, মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর ফোরজি’র জন্যে সর্বনিম্ন সাত এমবিপিএস গতিতে সেবা দেয়ার কথা। কিন্তু পরীক্ষায় দেখা গেছে, বাংলালিংক ফোরজিতে তিন দশমিক ৫৬ এমবিপিএস, গ্রামীণফোন ৫ দশমিক ১ এমবিপিএস এবং রবি’র দিচ্ছে ৪ দশমিক ৮৯ এমবিপিএস।

তবে বিটিআরসির এই পরীক্ষায় ছিল না রাষ্ট্রায়াত্ত্ব অপারেটর টেলিটক। তবে থ্রিজি’র নির্ধারিত দুই এমবিপিএস ডাউনলোড স্পিড টেলিটক দিতে পারেনি। এক্ষেত্রে অন্যরা সেটি নিশ্চিত করেছে।

ইন্টারনেট ছাড়াও কল ড্রপের টেস্টে দেখা যায়, বিটিআরসি নির্ধারিত কল ড্রপ দুই শতাংশের জায়গায়, টেলিটকের কল ড্রপ আছে ৭.৯২ শতাংশ। অন্য চারটি অপারেটরও বিটিআরসি নির্ধারিত সেকেন্ডের সময় মানতে পারেনি। তবে কাভারেজের বিবেচনায় সবগুলো মোবাইল অপারেটর সন্তোষজনক অবস্থান নিশ্চিত করেছে।