advertisement
আপনি পড়ছেন

পটুয়াখালীতে অবস্থিত দেশের দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবল লাইনে জটিলতা দেখা দিয়েছে। এতে করে ইন্টারনেটে ধীরগতির সমস্যায় পড়েছেন গ্রাহকরা। আজ রোববার তথ্যটি জানিয়েছে বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিসিএল)।

submarine cableসাবমেরিন কেবল

এ বিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মশিউর রহমান বলেন, রোববার দুপুরের দিকে হঠাৎ করেই পটুয়াখালীতে দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবলের (এসইএ-এমই-ডব্লিউই-৫) পাওয়ার সাপ্লাইয়ে সমস্যা দেখা দিয়েছে। এখন সেটির মেরামতের কাজ চলছে। আশা করি আজকের মধ্যেই ঠিক হয়ে যাবে।

তিনি বলেন, সারাদেশে যে ব্যান্ডইউথ ব্যবহার করা হয়, তার প্রায় অর্ধেক সংখ্যক দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবল থেকে সরবরাহ করা হয়ে থাকে। সে জন্য লাইনটি বন্ধ থাকায় গ্রাহকরা ইন্টারনেট ধীরগতির সমস্যায় পড়েছেন।

ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (আইএসপিএবি) সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হক বলেন, রোববার দুপুর থেকে ইন্টারনেট ধীরগতি হয়ে গেছে। ফলে আইএসপিগুলো যে পরিমাণ ব্যান্ডইউথ সরবরাহ করে, এখন তার অর্ধেক দিতে পারছে।

তথ্যপ্রযুক্তি ও আইআইজি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান ফাইবার অ্যাট হোমের প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা সুমন আহমেদ সাবির বলেন, পটুয়াখালীতে অবস্থিত দ্বিতীয় সাবমেরিন কেবলে পাওয়ার সাপ্লাই সমস্যা দেখা দিয়েছে। এ কারণে ইন্টারনেটের গতি ধীর হয়ে গেছে।

প্রসঙ্গত, এই স্টেশনের মাধ্যমে সাউথইস্ট এশিয়া-মিডলইস্ট-ওয়েস্টার্ন ইউরোপ আন্তর্জাতিক কনসোর্টিয়ামের সাবমেরিন কেবল থেকে সেকেন্ডে ১ হাজার ৫০০ গিগাবিট (জিবি) গতির ইন্টারনেট পায় বাংলাদেশ।