advertisement
আপনি দেখছেন

ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবায় ‘এক দেশ, এক রেট’ কার্যকর হচ্ছে আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে। সেদিন থেকেই মানসম্মত সেবা নিশ্চিত করতে এবার চালু হলো ৫ বছর মেয়াদি ‘গ্রেড অব সার্ভিস’। এর ফলে প্রতিশ্রুত সেবা না পেলে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অভিযোগ করতে পারবেন গ্রাহকরা।

broadband internetব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট, ফাইল ছবি

কর্মকর্তারা বলছেন, সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর (আইএসপি) বিরুদ্ধে অভিযোগ করা যাবে তাদের সংগঠনে অথবা টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থায় (বিটিআরসি)। এর ফলে প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী সেবা দিতে না পারলে প্রতিষ্ঠানকে গুণতে হবে জরিমানা। সেবা ২৫ শতাংশ সময় ডাউন থাকলে ৫০ শতাংশ বিল আর ৭৫ শতাংশ ডাউন থাকলে কোনো বিলই দিতে হবে না গ্রাহককে।

কোয়ালিটি অব সার্ভিস শতভাগ নিশ্চিতের বিষয়টি যাচাই করতে কিছু প্যারামিটার নির্ধারণ করেছে বিটিআরসি। সেগুলোই হলো ‘গ্রেড অব সার্ভিস’, যা দেখে গ্রাহকের কাঙ্ক্ষিত সেবার বিষয়টি বোঝা যাবে। এর মধ্যে আইএসপির জন্য ৩টি, আইআইজিগুলোর জন্য ৩টি এবং এনটিটিএনের জন্য ৫টি গ্রেড রয়েছে। বাজার চাহিদা ও গ্রাহকের স্বার্থ বিবেচনায় যেকোনো সময় এ ক্ষেত্রে পরিবর্তন করতে পারবে সংস্থাটি।

btrc logoবিটিআরসির লোগো

‘গ্রেড অব সার্ভিস’ বাস্তবায়ন ও তদারকি করতে ১ সেপ্টেম্বর থেকে একটি মনিটরিং সেল চালু করবে ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন আইএসপিএবি। কোন প্রতিষ্ঠান কেমন সেবা দিচ্ছে, সেটি দেখার পাশাপাশি অভিযোগ খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেবে এই সেল, বলছেন সংগঠনটির সভাপতি আমিনুল হাকিম।

এ ছাড়া এই খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা হিসেবে বিটিআরসির আলাদা একটি মনিটরিং সেল গঠন করবে, যেটি ১ সেপ্টেম্বরের আগেই চালু হতে পারে। সরকারের পক্ষ থেকে এই সংস্থাটিই গত ৬ জুলাই ‘এক দেশ এক রেট’ ঘোষণা করেছিল।

পরবর্তীতে গত ১২ আগস্ট সারাদেশের ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের সব আইএসপি এবং বেসরকারি এনটিটিএন ও আইআইজি ট্যারিফের উদ্বোধন করা হয়। সেদিন জানানো হয়, পাঁচ এমবিপিএস ইন্টারনেটের দাম পড়বে ৫০০ টাকা, ১০ এমবিপিএস ৮০০ এবং ২০ এমবিপিএস ১ হাজার ২০০ টাকা। এই দামে ইন্টারনেট সেবা নিশ্চিত করবে সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলো।