advertisement
আপনি দেখছেন

বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বের পাঁচ ম্যাচ শেষে পাঁচটিতেই জিতলো নিউজিল্যান্ড। সর্বশেষ রোববার আফগানিস্তানকে ছয় উইকেটে হারিয়েছে বিশ্বকাপের অন্যতম স্বাগতিকরা। পাঁচ ম্যাচে এটি আফগানিস্তানের চতুর্থ হার। স্কটল্যান্ডের সাথে একটি ম্যাচে জিতেছে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে সুযোগ পাওয়া আফগানিস্তান।

রোববার খুব সহজেই জিতে গেছে কিউইরা। আফগানরা তাদেরকে নূন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখেও ফেলতে পারেনি। আগের ম্যাচগুলোতে আফগানিস্তান যতোটা ভালো ক্রিকেট খেলেছে, এই ম্যাচে তারা তা পারেনি বললেই চলে।

ম্যাচে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে মাত্র ৬ রানের মধ্যেই দুই উইকেট হারিয়ে বসে তারা। এরপর ৫৯ রানের মধ্যেই পড়ে যায় তাদের আরো তিন উইকেট। টপ অর্ডারের ব্যর্থতার কারণেই মূলত এই ম্যাচটি হারতে হয়েছে এশিয়ান দেশটিকে।

আগে ব্যাটিং করে আফগানিস্তান তুলে মাত্র ১৮৬ রান। সর্বোচ্চ ৫৬ রান করেন নাজিবুল্লাহ জাদরান। এ ছাড়া ৫৪ রান করেন সামিউল্লাহ শেনওয়ারি। সামিউল্লাহই এখন পর্যন্ত আফগানদের হয়ে সেরা ব্যাটসম্যান। স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ের ম্যাচেও ৯৬ রান করেন তিনি।

নিউজিল্যান্ডের হয়ে চারটি উইকেট নেন ডেনিয়েল ভেট্টরি। বিশ্বকাপের আগে আগেই দলে আনা হয়েছে তাকে। যে বিশ্বাসে কিউই নির্বাচকরা তাকে ডেকেছিলেন, এখন পর্যন্ত ভেট্টরি সেই বিশ্বাস ভালোভাবেই রক্ষা করেছেন। এ ছাড়া তিনটি উইকেট নেন ট্রেন্ট বোল্ট।

১৮৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে চারটি উইকেট হারায় কিউইরা। দলীয় ৫৩ রানে বিদায় নেন ম্যাককালাম। মাত্র ১৯ বলে ৪২ রান করেছিলেন তিনি। ম্যাককালাম আর কিছুক্ষণ উইকেটে থাকলে হয়তো আরো বড় ব্যবধানে জিততে পারতো কিউইরা। ১১১ রানে আউট হন কেন উইলিয়ামসন। ৩৩ রান করেছিলেন তিনি। ১৪৩ রানে বিদায় নেন মার্টিন গাপটিল। ৫৭ রান করেছিলেন তিনি। ১৭৫ রানে আউট হন গ্রান্ট ইলিয়ট। পরে দলকে জয়ের বন্দরে নিয়ে যান কোরি অ্যান্ডারসন ও রস টেইলর।

আফগানিস্তানের হয়ে একটি করে উইকেট নেন শাপুর জাদরান ও মোহাম্মদ নবি। বাকি দুই উইকেটের পতন হয় রান আউটের মাধ্যমে।

 

আপনি আরো পড়তে পারেন

জিম্বাবুয়ের পাঁচ রানের আক্ষেপ

পাকিস্তানের দুর্দান্ত জয়