advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 20 মিনিট আগে

একটা সময় ছিলেন বাংলাদেশ দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য। তাসকিন আহমেদকে ছাড়া বাংলাদেশ দল কল্পনাই করা যেতো না। কিন্তু একের পর এক ইনজুরিতে পড়ে ছন্দ এতোটাই হারিয়ে ফেলেছিলেন যে জাতীয় দল থেকে অনেকটা দূরে চলে গিয়েছিলেন তরুণ পেসার। সেখান থেকে দারুণভাবে আবার ঘুরে দাঁড়িয়েছিলেন গত বিপিএলে।

taskin ahmed will play tomorrow

সিলেট সিক্সার্সের হয়ে প্রথম ১২ ম্যাচে ২২ উইকেট নিয়ে একটা সময় বিপিএলের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারী ছিলেন তাসকিন। এমন পারফরম্যান্সে দলে জায়গাও ফিরে পেয়েছিলেন। বিশ্বকাপের আগে তাসকিনের অমন দুর্দান্তভাবে ফিরে আসাটাকে বড় পাওয়া মনে করছিলেন সবাই। কিন্তু তার পরপরই চোট আবারও দুঃস্বপ্নের মতো হাজির!

বিপিএলের ম্যাচেই পায়ের গোড়ালিতে বড় ধরনের চোট পান তরুণ পেসার। তাতে নিউজিল্যান্ড সফরে যাওয়া তো হয়ইনি, বিশ্বকাপ দলে থাকার সম্ভাবনাও শঙ্কার মধ্যে পড়েছে। তবে এতোকিছুর মধ্যে স্বস্তির খবর হচ্ছে আড়ই মাস পর মাঠে ফিরছেন তাসকিন। আগামীকাল লিজেন্ড অব রূপগঞ্জের হয়ে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ খেলতে নামার কথা তরুণ পেসারের।

আজ মিরপুরের একাডেমি মাঠে অনুশীলনের ফাঁকে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তাসকিন বলেন, ‘এটাই (মাঠে ফেরা) আমার স্বপ্ন, এটার জন্যই এত কষ্ট করছি। আল্লাহর কাছে অনেক শুকরিয়া, খেলার অনুমতি পেয়েছি। আল্লাহ চাইলে আগামীকাল থেকে খেলতে নামবো। সবার কাছে দোয়া চাচ্ছি, যাতে আমি সুস্থ থাকি, ভালো করতে পারি।’

তাসকিন বলেন, ‘কাল (বুধবার) ম্যাচ হবে। এর আগে আমি ফুল রানআপে তিনটা সেশন শেষ করেছি। কোন সমস্যা হয়নি। মানে আড়াই মাস পর খেলতে নামব। ফিটনেস নিয়ে আমি আত্মবিশ্বাসী। আমি ভালো অবস্থায় আছি।’

বিশ্বকাপ দলে সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনার কথা জানতে চাইলে তাসকিন বলেন, ‘ভালো না করলে বিশ্বকাপে সুযোগ পাব না। ফিট না থাকলে সুযোগ পাব না। তবে এটা একটু বেশি চাপের, কারণ বিশ্বকাপ তো আমার জন্য স্বপ্নের। কারণ এটা বড় আসর। এখন ফিট না হলে সুযোগ পাব না।’

খেলার অনুমতি পাওয়ার পর যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব মাঠে ফিরতে চাইছিলেন তাসকিন। বেশ কয়েকটা দলের সঙ্গে কথাও বলেছেন। কিন্তু হুট করে ফেরার পরই মাঠে নামিয়ে দিতে কেউ রাজি হয়নি। কয়েকদিন দলের সঙ্গে থাকার পর ম্যাচ খেলার কথা বলছিল। কিন্তু লিজেন্ড অব রূপগঞ্জ তাকে কাল থেকেই ম্যাচ খেলতে নামিয়ে দিতে চেয়েছে। এতে রূপগঞ্জের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতেও ভুললেন না তাসকিন।

তরুণ পেসার বলেন, ‘ওরা (রূপগঞ্জ) ভালো ফর্মে আছে। আমি রূপগঞ্জকে নিশ্চিত করার আগে আরও কয়েকটা দলকে ফোন করেছিলাম। সবাই সুপার লীগ থেকে খেলাতে চাইছিল। তো আমি খুশি যে রূপগঞ্জ আমাকে এই সাপোর্টটা দিয়েছে। অনেক দল চিন্তিত ছিল যে, আমি ইনজুরি থেকে এসেছি, এখনই খেলাবে কিনা, কয়েকটা দিন দলের সাথে থাকার পর প্র্যাকটিস করিয়ে খেলাবে। রূপগঞ্জকে এজন্য ধন্যবাদ যে ওরা কাল থেকে খেলাতে রাজি হয়েছে।’

sheikh mujib 2020