advertisement
আপনি দেখছেন
সর্বশেষ আপডেট: 48 মিনিট আগে

ক্রিকেটের একটা ওভারে এতো ঘটনা ঘটতে পারে! চেন্নাই সুপার কিংস বনাম রাজস্থান রয়্যালসের মধ্যকার ম্যাচের শেষ ওভারটি দেখলে আপনি এমনটা বলতেই পারেন। আইপিএলের ২৫ নম্বর ম্যাচটার পুরো সময়ই রোমাঞ্চে ভরপুর ছিল। তবে শেষ ওভারের রোমাঞ্চ যেন সিনেমাকেও হার মানিয়ে গেল।

rajasthan chennai match

শেষ ছয় বলে জয়ের জন্য চেন্নাই সুপার কিংসের দরকার ছিল ১৮ রান। ক্রিজে ছিলেন রবীন্দ্র জাদেজা ও মহেন্দ্র সিং ধোনি। রাজস্থান অধিনায়ক অজিঙ্কা রাহানে বল তুলে দেন বেন স্টোকসের হাতে। প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকিয়ে দিলেন জাদেজা। নাটকের শুরু সেখানেই!

প্রথম বলটা ওয়াইড ইয়র্কার করতে চাইলেন হয়তো স্টোকস, কিন্তু হয়ে গেল হাফভলি। সামনের পায়ে ভর দিয়ে উড়িয়ে মারেন জাদেজা। বল সীমানা ছাড়িয়ে ছক্কা। কিন্তু ওদিকে চিৎপটাং জাদেজা, স্টোকস দুজনেই!

ব্যালেন্স ধরে রাখতে না পেরে উইকেটের ওপরই পরে যান জাদেজা, বেন স্টোকসও ব্যালেন্স ধরে রাখতে না পেরে উইকেটের পাশেই পরে যান। এদিকে, নন স্ট্রাইকপ্রান্তে থাকা ধোনি ততক্ষণে এগিয়ে গিয়ে মজার ছলে জাদেজার পিঠে ব্যাট দিয়ে দু’বারি দিয়ে দিলেন।

সেখানেই নাটকের শেষ নয়। তালগোল পাকানো বেন স্টোকস পরের বলটা করলেন নো। ফ্রি-হিটে মহেন্দ্র সিং ধোনির মতো ব্যাটসম্যানও দুই রানের বেশি নিতে পারলেন না। পরের বলেই ধোনি (৫৮) আউট। সবচেয়ে বড় নাটকটা হলো তার পরের বলে।

চেন্নাইয়ের নতুন ব্যাটসম্যান মিচেল স্যান্টনারকে ওভারের চার নম্বর বলটা হয়তো ফুলটস করতে চেয়েছিলেন স্টোকস, কিন্তু বলের উচ্চতা এতোটাই ছিল যে খোলা চোখে দেখেও মনে হচ্ছিল ‘নো বল’। নন স্ট্রাইকপ্রান্তে থাকা আম্পায়ার ‘নো’ কলও করেন। কিন্তু অন্য প্রান্তের আম্পায়ার সেই সিদ্ধান্ত বাতিল করে দেন। বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছে যায়।

মহেন্দ্র সিং ধোনি ড্রেসিংরুম থেকে মাঠের ভেতরে ঢুকে আম্পায়ারদের সঙ্গে তর্ক জুড়ে দেন। তবে আম্পায়ার নো বাতিল করার সিদ্ধান্ত থেকে শেষ পর্যন্ত সরে আসেননি। ওভারের পঞ্চম বল থেকে দুই রান নেন স্যান্টনার। পরের বলে আবারও ওয়াইড করেন স্টোকস। শেষ বলে চেন্নাইয়ের প্রয়োজন ছিল এক রান। নার্ভাস স্টোকসকে ছক্কা হাঁকিয়ে চেন্নাইয়ের জয় নিশ্চিত করেন স্যান্টনার। এক ওভারে কতোকিছু!

sheikh mujib 2020