advertisement
আপনি দেখছেন

কলকাতার ইডেন গার্ডেন টেস্টে দারুণ খেলতে খেলতে হঠাৎ করেই হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে পড়েছিলেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। বাংলাদেশ ইনিংস হারের মুখেও পরে আর ব্যাটিং করতে নামতে পারেননি বাংলাদেশের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক। ওই ইনজুরিটা বেশ ভালোই ভোগাবে হয়তো মাহমুদুল্লাহকে। শোনা যাচ্ছে, বিপিএলের শুরু থেকে নাও পাওয়া যেতে পারে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের ‘এ’ প্লাস ক্যাটাগরির ক্রিকেটারকে।

mahmudullah bangladesh practiec

বঙ্গবন্ধু বিপিএল শুরু হচ্ছে আগামী ১১ ডিসেম্বর থেকে। এদিকে, বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী ঠিক করে বলতে পারলেন না মাহমুদুল্লাহ ঠিক কবে নাগাদ মাঠে ফিরবেন।

দেবাশীষ বলেন, ‘মাহমুদুল্লাহর ইনজুরিটা হচ্ছে গ্রেড ওয়ানের হ্যামস্ট্রিং ইনজুরি। সোমবার তার স্ক্যান করানো হয়েছে। আমরা এখনো রিপোর্ট পাইনি। এখনে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে খুব অল্প মাত্রার হ্যামস্ট্রিং হলেও আমরা সাত থেকে দশ দিন বিশ্রাম দিই। রেস্ট নেওয়া এবং রিহ্যাবের জন্য। ফিট না হয়ে ফিরলে আবারও ইনজুরিতে পরার খুবই সম্ভাবনা থাকে। আর একই জায়গায় দ্বিতীয়বার ইনজুরি পেলে সারতে সময় বেশি লাগে।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রধান কাজ হচ্ছে দ্বিতীয় ইনজুরিটা আটকানো। কারণ দ্বিতীয়বার চোট পেলে দ্বিগুণ সময় লাগবে। এক মাস লেগে যায় এতে। আবার ওই জায়গায় তৃতীয়বার চোট পেলে পুরো মৌসুম মিস হতে পারে। এক্ষেত্রে আমাদের প্রথম এবং প্রধান কাজ হচ্ছে ইনজুরিটা যেন দ্বিতীয়বার না আসে তার ব্যবস্থা করা।’

গত ১৭ নভেম্বরের প্লেয়ার ড্রাফট থেকে নিজেদের প্রথম সুযোগেই দেশি ক্যাটাগরি থেকে মাহমুদুল্লাহকে ডেকে নেয় চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। দলটির অধিনায়ক হিসেবেও প্রথম পছন্দ মাহমুদুল্লাহ। ফলে পুরো টুর্নামেন্ট মাহমুদুল্লাহকে না পেলে সেটা চট্টগ্রামের জন্য বড় ধাক্কাই বলতে হবে।