advertisement
আপনি দেখছেন

ম্যাচ ফিক্সিংয়ের কারণে গ্রেপ্তার হলেও নিজেকে নির্দোষ দাবি করছিলেন পাকিস্তানের এক সময়কার তারকা ওপেনার নাসির জামশেদ। তবে জেরার একটা পর্যায়ে আনীত অভিযোগ স্বীকার করে নিয়েছেন পাকিস্তানি তারকা। পাকিস্তান সুপার লিগ (পিএসএল) ও বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) ম্যাচ ফিক্সিংয়ের চেষ্টা করার কথা স্বীকার করেছেন তিনি। জানিয়েছেন, পিএসএলে ম্যাচ ফিক্সিং করতে পারলেও বিপিএলে সফল হননি।

nasir jamshed vs west indes

২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে যুক্তরাজ্যের নাগরিক ইউসুফ আনোয়ার ও মোহাম্মদ ইজাজের সঙ্গে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন নাসির জামশেদ। ২০১৮ সালের আগস্টে নাসিরকে দশ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। তবে শুনানি চালিয়েই যাচ্ছিল ইংল্যান্ডের ম্যানচেস্টার ক্রাউন কোর্ট।

নিজের প্রাথমিক বয়ানে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন নাসির। তবে এক পর্যায়ে দোষ স্বীকার করে নেন তিনি।

২০১৬ সালে পাকিস্তানের আরেক ওপেনার শারজিল খানকে সঙ্গে নিয়ে পিএসএলে ম্যাচ ফিক্সিং করেন নাসির। পরিকল্পনার অংশ হিসেবে একটি ম্যাচের নির্ধারিত সময়ে পরপর দুটি বল ডট খেলেন শারজিল। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগেও ম্যাচ ফিক্সিংয়ের চেষ্টা করেন দুজন। কিন্তু মাঠ থেকে সংকেত পৌঁছাতে না পারার কারণে সে চেষ্টা ব্যর্থ হয়।

এই সব বিষয়গুলো উঠে এসেছে তদন্তে। শোনা যাচ্ছে, নাসির জামশেদসহ আরও দুজনকে কারাদণ্ড দিতে যাচ্ছে ম্যানচেস্টার ক্রাউন কোর্ট। আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসতে পারে ফেব্রুয়ারিতে।