advertisement
আপনি দেখছেন

বিশেষ বিমানে করে কাল লাহোরে পা রেখেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। লাহোরে পৌঁছার পর থেকেই অনেকটা সিনেমাটিক সময় কাটছে মাহমুদুল্লাহ, তামিম ইকবালদের। চারপাশে নিরাপত্তা বেষ্টনী, সামনে পেছনে একে-৪৭ নিয়ে ঘুরঘুর করছে নিরাপত্তারক্ষীরা। এমন পরিবেশে মোটেও অভ্যস্ত নয় বাংলাদেশ দল।

mahmudullah press

মাহমুদুল্লাহ, তামিমদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কাজ করছে দশ হাজারের বেশি ফোর্স। লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামের আশপাশ এলাকা সিসিটিভির নিয়ন্ত্রণ নেওয়া হয়েছে। সিরিজ শুরুর দুদিন আগ থেকে সিরিজ শেষ হওয়ার পরদিন পর্যন্ত স্টেডিয়ামের আশেপাশের সকল দোকান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। পাকিস্তানে প্রেসিডেন্সিয়াল সিকিউরিটি দেওয়া হচ্ছে বাংলাদেশ দলকে।

কোথাও খেতে যাওয়া, কেনাকাটা করতে যাওয়াতে পুরোপুরি মানা। হোটেলের বাইরে বের হওয়াই নিষেধ। প্রশ্ন হচ্ছে, এমন সিকিউরিটি, চোখের সামনে একে-৪৭ নিয়ে ঘোরাঘুরি দেখে ক্রিকেটে মন দিতে পারবেন তো ক্রিকেটাররা? মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ বললেন পারবেন।

এমন সফর অনেক সময় দলের জন্য ভালো কিছু বয়ে আনে বলছেন বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক। মাহমুদুল্লাহ বলেন, 'এমন পরিবেশে দলের সদস্যরা একসঙ্গে সময় কাটাতে পারে। এটা দলের জন্য ইতিবাচক।’

প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোও বললেন একই কথা, 'অনেক সময় এমন বদ্ধ পরিবেশে একসঙ্গে থাকাটা দলের জন্য ভালো হতে পারে। এমন পরিবেশ দলের মধ্যে ঐক্য ও যোগাযোগ বাড়াতে সাহায্য করে।'

sheikh mujib 2020