advertisement
আপনি দেখছেন

ক্রিকেট বিশ্বের অন্য যে কোনো দলের চেয়ে ভারতের মাঠের ব্যস্ততা বেশি। বছরজুড়ে তিন সংস্করণেই খেলতে খেলতে দলটির অনেক ক্রিকেটারদের ক্লান্তির কথা বলতে দেখা গেছে। এবার খোদ বিরাট কোহলিই ভারতীয় ক্রিকেটের ব্যস্তসূচির সামনে কুর্নিশ করলেন। প্রকাশ করলেন নিজের হতাশা।

virat kohli 2020

সামনেও কঠিন সূচি অপেক্ষা করছে ভারত এবং দলটির ক্রিকেটারদের জন্য। তন্মেধ্যে তিনটি বিশ্বকাপ আছে। এই ঠাসাসূচির মানসিক প্রস্তুতি এখন থেকেই নিচ্ছেন ভারতের সর্বাধিনায়ক। এরপর ক্রিকেটের যে কোনো একটি সংস্করণ থেকে অবসর নিচ্ছেন তিনি; বুধবার তেমনই ইঙ্গিত দিয়ে ফেললেন কোহলি।

আজ সংবাদ সম্মেলনে কোহলি বলেছেন, ‘সামনের তিন বছরের জন্য আমি নিজেকে প্রস্তুত করছি। এর মধ্যে কোনো সমস্যা হবে না। কিন্তু আমার বয়স যখন ৩৪-৩৫ হবে তখন আমার শরীর এত ধঁকল নিতে পারবে না। এরপরই হয়তো অন্য কথাবার্তা শুনতে পাবেন আমার কাছ থেকে।’

কোহলির এই ‘অন্য কথাবার্তা’ যে অবসরের অগ্রিম আভাস তা অনুমান করাই যাচ্ছে। কার্যত ভারতের ব্যস্তসূচিতে অসহায় হয়ে পড়েছেন কোহলি। ৩১ বছর বয়সী কোহলি বলেছেন, ‘গত আট বছরে আমি বছরে প্রায় তিন শ দিন ক্রিকেট খেলেছি। এর মধ্যে আবার ভ্রমন ক্লান্তি এবং অনুশীলন সেশন।’

কোহলি আরো বলেছেন, ‘দল আমার কাছে অনেককিছুই চায়। আমি চেষ্টা করি দলকে কিছু দেওয়ার। তাই সবসময় মাঠে সবটুকু নিংড়ে দিতে হয়। কিন্তু সবকিছু মিলিয়ে শরীরের ওপর চাপ পড়ে যায়। এভাবেই আমাকে সামনের দিনগুলোতে খেলে যেতে হবে। দুই-তিন বছর পর দল আমার কাছ থেকে আরো কিছু আশা করছে।’