advertisement
আপনি দেখছেন

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে সিরিজ মিলিয়ে সাত ইনিংস ব্যাটিং করেছেন বিরাট কোহলি। তাতে ভারতীয় অধিনায়কের স্কোরগুলো যথাক্রমে ৪৫, ১১, ৩৮, ১১, ৫১, ১৫, ৯। অন্য দশজন সাধারণ ব্যাটসম্যান হলে এই পারফরম্যান্স হয়তো চলে, কিন্তু নামটা যখন বিরাট কোহলি তখন প্রশ্ন উঠেই যায়- হঠাৎ কী হলো কোহলির?

virat kohli failed

টেস্টেও এই প্রশ্নের উত্তর দিতে পারলেন না ভারতীয় অধিনায়ক। আজ ওয়েলিংটনে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথমটি খেলতে নেমেছে ভারত। চারে ব্যাটিং করতে নেমে মাত্র ২ রানেই আউট হয়েছেন ভারতীয় অধিনায়ক। ভারতও ধুঁকল টেস্টের প্রথম দিনের পুরোটা সময়।

সন্তানসম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকতে ছুটি চেয়ে নিয়েছেন নিল ওয়াগনার। এই সুযোগে নিউজিল্যান্ডের টেস্ট দলে সুযোগ মিলেছে কাইল জেমিসনের। ৬ ফিট ৮ ইঞ্চি লম্বা ২৫ বছর বয়সী এই পেসারের জবাব খুঁজে পায়নি কোহলির দল।

রোহিত শর্মার ইনজুরিতে সুযোগ পাওয়া তরুণ ওপেনার পৃথ্বী শ'কে (১৬) ইনিংসের ষষ্ঠ ওভারে ফিরিয়েছেন জেমিসন। তারপর চেতেশ্বর পুজারাকে নিয়ে মায়াঙ্কা আগারওয়াল প্রতিরোধের আভাস দিয়েছিলেন। দুজন নির্বিঘ্নে ১৫ ওভার কাটিয়ে দিলে মনে হচ্ছিল, ঘুরে দাঁড়ালো বুঝি ভারত! কিন্তু ১৬তম ওভারেই নিজের উচ্চতাকে কাজে লাগিয়ে দুর্দান্ত এক বাউন্সারের পুজারাকে ফিরিয়ে দেন জেমিসন। কোহলি এর ১৪ বল পর ফিরলে ভারতের স্কোর দাঁড়ায় ৪০/৩।

সেখান থেকে ভারতকে আরেকটা জুটি উপহার দেওয়ার চেষ্টা করেছেন আগারওয়াল। আজিঙ্কা রাহানেকে নিয়ে চতুর্থ উইকেটে ৪৮ রান তুলে স্বস্তি ফিরিয়ে আনেন তরুণ ওপেনার। তবে স্বস্তি বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি ভারতীয় সমর্থকদের। ব্যক্তিগত ৩৪ রানের মাথায় ট্রেন্ট বোল্টের বাউন্সারে পুল খেলতে গিয়ে উইকেট বিলিয়ে আসেন আগারওয়াল।

এর কিছুক্ষণ পর হানুমা বিহারীকে নিজের তৃতীয় শিকার বানিয়ে ভারতের চাপ আরও বাড়ান জেমিসন। শেষ পর্যন্ত চাপে থেকেই প্রথম দিন শেষ করেছে কোহলির দল। বৃষ্টির কারণে প্রথম দিনের খেলা হয়েছে ৫৫ ওভার। তাতে ৫ উইকেট হারিয়ে ১২২ রান তুলতে পেরেছে সফরকারীরা। জেমিসন তিন উইকেট নিয়েছেন। একটি করে উইকেট নিয়েছেন ট্রেন্ট বোল্ট ও টিম সাউদি।

sheikh mujib 2020