advertisement
আপনি দেখছেন

অল্পের জন্য সাড়ে তিন শ করতে পারেনি নিউজিল্যান্ড। কিউইদের প্রথম ইনিংস থেমেছে ৩৪৮ রানে। তবু খুশি কিউইরা। লিড যে দাঁড়িয়ে গেছে ১৮৩ রানের! স্বাগতিকদের এমন মধুর পরিস্থিতি এনে দিয়েছেন লোয়ার অর্ডারের দুই ব্যাটসম্যান অভিষিক্ত কাইল জেমিসন ও ট্রেন্ট বোল্ট।

trent boult goes on a celebratory run

ভারতের প্রথম ইনিংসে বল হাতে ঝড় তোলা এই দুই পেসার আজ ব্যাট হাতের তাণ্ডব দেখালেন। জেমিসন যদি ওয়ানডে মেজাজে ব্যাট করে থাকেন তাহলে বোল্ট টি-টোয়েন্টি ঘরনায়। নয় নম্বরে নেমে ৪৫ বলে ৪৪ রান আউট হন জেমিসন। ইনিংসে চারটি ছক্কার সঙ্গে একটি চার।

একাদশতম ব্যাটসম্যান বোল্ট অবশ্য চার মেরেছেন বেশি। ২৪ বলে ৩৮ রানের ঝড়ো ইনিংসে পাঁচটি চার ও একটি ছক্কায় হাঁকিয়েছেন তিনি। এই দুজনের আগে ৪৩ রানে সাজঘরে ফিরেছেন কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম। কিউইদের গুটিয়ে দিতে কার্যকর ভূমিকা রাখলেন ইশান্ত শর্মা। পাঁচ উইকেট নিয়েছেন তিনি। রবিচন্দ্রন অশ্বিনের শিকার তিনটি।

ব্যাট হাতে জ্বলে ওঠা বোল্ট আজ বল হাতেও আগুন ঝরালেন। তাতেই দিশেহারা ভারত। দ্বিতীয় ইনিংসে ১১৩ রানের মধ্যে চার উইকেট শেষ। তন্মেধ্যে আছে বিরাট কোহলির উইকেটও। সিরিজ শুরু আগে বোল্ট যে সতর্কবার্তা দিয়েছিলেন তাতে কর্ণপাত হয়নি তার। বোল্টের শিকার হয়েই ১৯ রানে ফিরে গেলেন কোহলি।

ওয়েলিংটন টেস্টের তৃতীয় দিন আজ বোল্টের অন্য দুই শিকার ওপেনার পৃথ্বি শ ও চেতেশ্বর পূজারা। প্রথমজন ১৪ এবং দ্বিতীয়জন ১১ রানে ফিরেছেন সাজঘরে। উইকেটে জমে যাওয়া আরেক ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়ালকে ফেরান পেসার টিম সাউদি। ৫৮ রানে আউট হন আগারওয়াল।

ভারতের প্রথম ইনিংসে তিনি করেন ৩৪ রান। যা ইনিংসে দ্বিতীয় দলীয় সর্বোচ্চ। প্রাথমিক বিপর্যয় সামলে উঠতে শেষ বিকেলে দলের হাল ধরেন আজিঙ্কা রাহানে ও হনুমা বিহারি। দুজন মিলে ইনিংস মেরামতের কাজ করছেন; ব্যাট করছেন আদর্শ টেস্ট মেজাজে। রাহানে ২৫ এবং বিহারি ১৫ রানে অজেয় থেকে দিনের খেলা শেষ করেছেন।

তৃতীয় দিন শেষে ভারতের সংগ্রহ দাঁড়াল চার উইকেটে ১৪৪ রান। লিড নিতে আরো ৩৯ রান করতে হবে অতিথিদের। হাতে অক্ষত আছে ছয় উইকেট। এর আগে প্রথম ইনিংসে ১৬৫ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল ভারত। সেটার মাসুল এখন দিতে হচ্ছে তাদের। চতুর্থ দিন হার ঠেকানোর লড়াইয়ে নামবেন কোহলিরা।

sheikh mujib 2020