advertisement
আপনি দেখছেন

সময়টা একেবারেই ভালো যাচ্ছে না বিরাট কোহলিদের। টি-টোয়েন্টি সিরিজে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ডকে ৫-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ করার পর সবাই ভেবেছিল ভারতের এই দলটিকে হারানোর মতো সামর্থ্য বিশ্বের খুব কম দলেরই আছে। কিন্তু ওডিআই সিরিজে এসেই সেই ধারণা পাল্টে দেয় ব্ল্যাক ক্যাপসরা। দুর্দান্ত প্রতাপে ৫-০ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নেয় কেন উইলিয়ামসনের দল। এবার টেস্ট সিরিজেও হোয়াইটওয়াশের আশঙ্কায় ভারত।

virat kohli test newহোয়াইটওয়াশের মুখে ভারত

দুই ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টের ২য় দিন শেষে খুব একটা সুবিধাজনক অবস্থানে নেই ভারতীয় ক্রিকেট দল। ৯৭ রানের লিডে এগিয়ে থাকলেও ইতোমধ্যে ৬ উইকেট পড়ে গেছে। ফলে ওডিআইয়ের পর টেস্টেও হোয়াইটওয়াশের মুখে পড়েছেন বিরাট কোহলিরা।

ক্রাইস্টচার্চ টেস্টে প্রথম ইনিংসে খেলতে নেমে টিম সাউদি-ট্রেন্ট বোল্টদের তোপের মুখে পড়ে ব্যাটিং ব্যর্থতায় মাত্র ২৪৬ রানেই গুটিয়ে যায় ভারত। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৫ রান করেন হনুমা বিহারি। এছাড়া প্রিথ্বি শাহ ও চেতেশ্বর পূজারা করেন ৫৪ রান। অন্যান্যদের মধ্যে কেউ তেমন সুবিধা করতে পারেননি। অধিনায়ক বিরাট কোহলি করেন মাত্র ৩ রান।

নিউজিল্যান্ডের পক্ষে কেইল জেমিসন সর্বোচ্চ ৫ উইকেট নিয়ে ভারতের ব্যাটিং লাইনআপ ধসে বড় ভূমিকা রাখেন। এছাড়া টিম সাউদি এবং ট্রেন্ট বোল্ট নেন ২টি করে উইকেট। বাকি উইকেটটি নেন নীল ওয়াগনার।

নিজেদের প্রথম ইনিংসে খেলতে নেমে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ডও তেমন সুবিধা করতে পারেনি। শামি-জাদেজা-বুমরাদের বোলিং তোপের মুখে মাত্র ২৩৫ রানেই অলআউট হয়ে যায় তারা। সর্বোচ্চ ৫২ রান আসে ওপেনার টম লাথামের ব্যাট থেকে। এছাড়া কেইল জেমিসন করেন ৪৯, টম ব্লানডেল ৩০ এবং কলিন ডে গ্রান্ডহোম করেন ২৬ রান। অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন মাত্র ৩ রান করে আউট হয়ে যান।

ভারতের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট নেন মোহাম্মদ শামি। এ ছাড়া জাসপ্রিত বুমরাহ নেন ৩ উইকেট এবং রবীন্দ্র জাদেজা নেন ২ উইকেট। অন্যটা রান আউট হয়।

দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ৭ রানের লিডে ব্যাট করতে নেমে দিনশেষে ৬ উইকেটের বিনিময়ে ৮৩ রান করেছে ভারত। ৯০ রানের লিডে এগিয়ে আছে তারা। সর্বোচ্চ ২৪ রান এসেছে পূজারার ব্যাট থেকে। আর হনুমা বিহারি ৫ ও রিশাব পান্ট ১ রান নিয়ে অপরাজিত আছেন।

এর আগে প্রথম টেস্টে ১০ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে পরাজয়ের লজ্জাবরণ করে বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন ভারতীয় দল।

sheikh mujib 2020