advertisement
আপনি দেখছেন

সিলেটে বাংলাদেশের বিপক্ষে একদিনের ক্রিকেটে তিনটি ম্যাচেই হেরেছে জিম্বাবুয়ে। সিরিজের দ্বিতীয়টিতে জয়ের সম্ভাবনাও জাগিয়েছিল তারা। শেষ পর্যন্ত নাটকীয় ম্যাচে শেষ বলে চার রানে হেরে গেছে দলটি। তাতে প্রায় এক দশকের অপেক্ষা বেড়ে গেছে জিম্বাবুইয়ানদের। স্বাগতিক বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ২০১০ সালের পর আর ওয়ানডে জেতেনি তারা।

sean williams 2020

ওয়ানডের ব্যর্থতা টি-টোয়েন্টি সিরিজে ঘোচাতে মরিয়া শেন উলিয়ামসদের দল। তাদের আশা দেখাচ্ছে কুড়ি ওভারের ক্রিকেটে বাংলাদেশের মাটিতে দারুণ সাফল্য। এ পর্যন্ত টাইগারদের বিপক্ষে ১১ ম্যাচের চারটিতেই জিতেছে জিম্বাবুয়ে। তন্মধ্যে তিনটি জয়ই বাংলাদেশের মাটিতে। সেই দলটা এবার সিরিজ জয়ের আশা দেখতেই পারে।

তবে কাজটা কঠিন, সেটা আরো কঠিন করে দিয়েছে এই সফরে তাদের পারফরম্যান্স। সফরে এখন পর্যন্ত দুই সংস্করণে মোট চারটি ম্যাচ হেরেছে জিম্বাবুয়ে। টি-টোয়েন্টি সিরিজই এখন তাদের কাছে সাফল্যের সবেধন নীলমনি। তাই সতীর্থদেরও উজ্জীবিত করার চেষ্টা চালাচ্ছেন সফরকারী অধিনায়ক উইলিয়ামস। আগের দুটি সিরিজ ভুলে সামনে তাকাতে চান তিনি।

আগামীকাল দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি-টোয়েটিতে বাংলাদেশের মুখোমুখি হবে জিম্বাবুয়ে। একদিন বাদে মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় ম্যাচ। এই সিরিজকে সামনে রেখে সাংবাদিক বৈঠকে আজ দলটির অধিনায়ক উইলিয়ামস বলেছেন, ‘অন্য দুই সংস্করণ পেছনে চলে গেছে। আমাদের চোখ এখন টি-টোয়েন্টিতে। টি-টোয়েন্টিতে স্বাধীনতা নিয়ে খেলতে পারলে আমরা চিত্রটা বদলে দিতে পারি।’

ওয়ানডের ভুলগুলোর পুনরাবৃত্তি টি-টোয়েন্টি সিরিজে চান না জিম্বাবুয়ের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক। তিনি বলেছেন, ‘টিম মিটিংয়ে আমি ওয়ানডে সিরিজ নিয়ে কোনো কথাই বলিনি। প্রসঙ্গটা এড়িয়ে গেছি। আজ (রোববার) নেট অনুশীলনে ছেলেদের বেশ আত্মবিশ্বাসী মনে হয়েছে। টি-টোয়েন্টিতে জিততে চায় ওরা। ওয়ানডে সিরিজে আমরা তিন বিভাগেই ধুঁকেছি। ছোট ছোট বিষয়গুলোই ম্যাচের ব্যবধান গড়ে দিয়েছে। আমরা নিজেদের হতাশ করেছি। এবার আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।'

sheikh mujib 2020