advertisement
আপনি দেখছেন

করোনাভাইরাস নিয়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বেড়েই চলছে। এর সবচেয়ে বড় নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে খেলাধুলার ওপর। করোনার দাপটে স্থগিত হয়ে গেছে বিশ্বের প্রায়সব খেলাধুলার ইভেন্ট। সামনে যেসব সূচি ও প্রতিযোগিতা আছে তাও পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে এক বছর। এবার অনিশ্চয়তা দেখা দিল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ নিয়েও।

t 20 world cup logo 2020

আগামী ১৮ অক্টোবর অস্ট্রেলিয়ায় পর্দা ওঠার কথা রয়েছে কুড়ি ওভারের বিশ্বকাপের। কিন্তু করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে দেশটির সব প্রবেশমুখ। কবে তাগাদ সীমান্ত পথ খুলে দেওয়া হবে সেটারও হদিস নেই। অস্ট্রেলিয়ার প্রবেশমুখ খোলার ওপর নির্ভর করছে বিশ্বকাপের ভাগ্য।

ইতোমধ্যে অস্ট্রেলিয়া সরকারের তরফ থেকে আভাস দেওয়া হয়েছে, বিদেশিদের ওপর অন্তত ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞা জারি হতে পারে। তাহলে কোনো বিদেশিই আর অস্ট্রেলিয়ায় যেতে পারবেন না। তেমনকিছু হলে পেছাতে হবে বিশ্বকাপের সূচি। পেছাতে পারে কয়েকটি দ্বিপাক্ষিক সিরিজও। টুর্নামেন্ট শুরুর আগে অস্ট্রেলিয়া সফরে যাওয়ার কথা রয়েছে ভারত ও ইংল্যান্ডের।

বিদেশিদের জন্য অস্ট্রেলিয়া সফরে ছয় মাসের নিষেধাজ্ঞা জারি করা হলে অক্টোবরের আগে সেখানে যেতে পারবেন না কেউ। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে নিষেধাজ্ঞার সময়সীমা কমিয়েও আনতে পারে অস্ট্রেলিয়া সরকার। কিন্তু এত স্বল্প সময়ের মধ্যে বিশ্বকাপের মতো মেগা ইভেন্ট আয়োজন করা কঠিন হয়ে পড়তে পারে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার জন্য।

এই অনিশ্চয়তার মধ্য দিয়েই স্টিভেন স্মিথের ওপর নেতৃত্বের নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)। দেশটির শীর্ষস্থানীয় প্রচারমাধ্যমের ধারণা- স্মিথকে আবারো নেতৃত্বে ফেরাতে পারে সিএ। তাদের দাবি- যে কোনো সময় স্মিথের নেতৃত্বে প্রত্যাবর্তনের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসতে পারে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড থেকে।