advertisement
আপনি দেখছেন

২০১১ বিশ্বকাপ জিতে বহুদিনের শিরোপা খরা কাটায় এমএস ধোনির নেতৃত্বাধীন ভারত। কিন্তু কষ্টার্জিত এ অর্জনকে বিতর্কিত করে তুলেন শ্রীলংকার সাবেক ক্রীড়ামন্ত্রী মাহিন্দানন্দ আলুথাগমাগে। তিনি অভিযোগ করেন, ভারতের কাছে বিশ্বকাপ বিক্রি করেছে শ্রীলংকা। নাটকের শুরুটা হয় এরপর থেকেই।

mahindananda aluthgamage

আলুথাগমাগে বলেন, '২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনালটি পাতানো ছিল। আমি দৃঢ়তার সাথেই বলছি। তখন আমি ক্রীড়ামন্ত্রী ছিলাম। আমি দায়িত্ব নিয়েই বলছি। তবে দেশের স্বার্থে আমি বিস্তারিত কিছু প্রকাশ করতে চাই না। খেলাটা ছিল ভারতের বিপক্ষে ২০১১ সালের, যে ম্যাচটি আমরা জিততে পারতাম। কিন্তু ম্যাচটি ছিল পাতানো।'

তবে কোন ক্রিকেটারকে জড়াননি তিনি। বরং দায়ী করেছিলেন সেসময়ের ক্রিকেট বোর্ডের দায়িত্বে থাকা কয়েকজনকে, ‘ভারতের কাছে বিশ্বকাপ বিক্রি করে দিয়েছিলাম আমরা। আমি দায়িত্ব নিয়েই এ কথা বলছি। এটা নিয়ে তর্ক করতে পারব। মানুষ তা জানে। আমি ক্রিকেটারদের এতে জড়াতে চাই না। তবে নির্দিষ্ট একটা গ্রুপ এই ম্যাচ ফিক্সিংয়ে অবশ্যই জড়িত ছিল।'

cricket world cup 2011

নিজের অভিযোগের ওপর ভিত্তি করে কিছু যুক্তিও দেখান আলুথাগমাগে, 'ফাইনালের আগে হুট করেই শ্রীলঙ্কা থেকে দুইজন ক্রিকেটারকে নিয়ে যাওয়া হয়। এজন্য ক্রিকেট বোর্ড বা ক্রীড়া মন্ত্রণালয় থেকে কোন অনুমতি নেয়া হয়নি।’

এখানেই গোলমেলে বেঁধে গেছে। কারণ ফাইনালের আগে দুই ক্রিকেটারকে ঠিকই মুম্বাই নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। তবে সেটা ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের অনুমতিতেই। এজন্য ৩০ মার্চ ২০১১ তারিখে ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের কাছে চিঠি দিয়ে অনুমতি নেয় দেশটির ক্রিকেট বোর্ড। এর যথার্থ প্রমাণও পাওয়া গেছে।

ফাইনালকে ঘিরে করা অভিযোগটি এখন মিথ্যায় পরিণত হয়েছে। যদি ম্যাচটি বিক্রির জন্যই দুই ক্রিকেটারকে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয়, তবে কেন অনুমতি দিয়েছিল ক্রীড়া মন্ত্রণালয়? তাই নিজের করা মন্তব্যে নিজেরই ফেঁসে যাবার উপক্রম হয়েছে আলুথাগমাগের।

sheikh mujib 2020