advertisement
আপনি দেখছেন

ক্রিকেটের নতুন সংস্করণ টি-টোয়েন্টি। তাও ১৬ বছর হয়ে গেছে। অথচ বিস্ময়কর হচ্ছে দেড় দশকেরও বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও এই ফরমেটে ইংল্যান্ডের সঙ্গে দেখা হয়নি বাংলাদেশের। আইসিসি টেস্ট খেলুড়ে দুই দশের এই সংস্করণে দেখা না হওয়ার সর্বোচ্চ ব্যবধান এটাই।

bangladesh vs england world cupটি-টোয়েন্টিতে প্রথমবারের মতো বুধবার মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ড

অবশেষে টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ ও ইংল্যান্ড। আগামীকাল বুধবার আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপের সুপার টুলেভে লড়বে দল দুটি। এই ম্যাচে বাংলাদেশের একাদশ কেমন হতে পারে? এ নিয়ে টাইগার ক্রিকেটপ্রেমীদের আগ্রহের শেষ নেই।

আগ্রহের কারণ বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের কয়েকজনই উত্থান-পতনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন। কিছু ক্রিকেটার তো ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বাজে সময় পার করছেন। তবু ম্যাচের পর ম্যাচ একাদশে সুযোগ পাচ্ছেন তারা। এ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার শেষ নেই। এই বিতর্কে যোগ দিয়েছেন খোদ পাকিস্তানর বিশ্বকাপজয়ী কিংবদন্তি ওয়াসিম আকরামও।

তার প্রশ্ন লিটন দাসকে নিয়ে। ব্যাট হাতে নিষ্প্রভ এই ওপেনার বাজে ফিল্ডিংয়ে হতাশ করেছেন দলকে। বাংলাদেশের বিপক্ষে শ্রীলঙ্কার জয়ের দুই নায়ক চারিথ আসালাঙ্কা ও ভানুকা রাজাপাকশের সহজ ক্যাচ হাত ছাড়া করেন লিটন। গুরুত্বপূর্ণ সময়ে দুই লঙ্কানের ক্যাচ ছেড়ে ম্যাচ থেকে টাইগারদের ছিটকে দেন তিনি।

সৌম্য সরকারেরও বাজে সময় যাচ্ছে। অনেক বিতর্কের পর একাদশ থেকে তাকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। সৌম্যের জায়গায় মোহাম্মদ নাঈম শেখ এসেই আলো ছড়াচ্ছেন। কিন্তু লিটনকে নিয়ে দুশ্চিন্তা থেকেই যাচ্ছে। ইংল্যান্ড ম্যাচেও তাকে রাখার সম্ভাবনার কথা শোনা যাচ্ছে। তবে নাসুম আহমেদ ছিটকে যেতে পারেন একাদশ থেকে।

একাদশে ঢুকে যেতে পারেন পেসার শরিফুল ইসলাম কিংবা তাসকিন আহমেদ। বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দল চারটি ম্যাচ খেললেও এখনো সুযোগ পাননি শরিফুল। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সুযোগ মিলতে পারে তার। অন্যথায় তাসকিন ফিরবেন একাদশে। নুরুল হাসান সোহান ইনজুরিতে পড়লে কিছুটা সংশয় জাগলেও টিম ম্যানেজমেন্টের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে একাদশে থাকবেন তিনি।

ব্যাট হাতে বাজে সময় কাটছে তারও। যদিও কিপার ভূমিকায় উজ্জ্বল পারফর্ম করে কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর আস্থার মধ্যেই আছেন তিনি। তাই এই ম্যাচেও তার একাদশে থাকা নিশ্চিত। সিনিয়র অন্য ক্রিকেটাররা প্রত্যাশিতভাবেই খেলবেন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে কাল আবুধাবির উইকেট দেখে। তবে একাদশ যেমনই হোক না বেন, ব্যাটিং অর্ডারে পরিবর্তন দেখা যেতে পারে।

সম্ভাব্য একাদশ বাংলাদেশ: লিটন দাস, মোহাম্মদ নাঈম শেখ, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), আফিফ হোসেন ধ্রুব, শেখ মেহেদি হাসান, নুরুল হাসান সোহান (উইকেটরক্ষক), মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, শরিফুল ইসলাম/তাসকিন আহমেদ ও মোস্তাফিজুর রহমান।

সম্ভাব্য একাদশ ইংল্যান্ড: জেসন রয়, জস বাটলার (উইকেটরক্ষক), ডেউইড মালান, জনি বেয়ারস্টো, লিয়াম লিভিংস্টোন, ইয়ন মরগান (অধিনায়ক), মঈন আলি, ক্রিস ওকস, ক্রিস জর্ডান, আদিল রশিদ, টিমাল মিলস/মার্ক উড।