advertisement
আপনি পড়ছেন

কাঁধের চোটের চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরেছেন তাসকিন আহমেদ। লন্ডনের ফর্টিয়াস ক্লিনিকে বিশেষজ্ঞ সার্জন ওয়ালেসের অধীনে চিকিৎসা নিয়েছেন তিনি। আপাতত অস্ত্রোপচার করাতে না হলেও রিহ্যাবের মাধ্যমে সুস্থ হতে হবে তাসকিনকে।

taskin ahmed bd cricketerতাসকিন আহমেদ

এই চোটে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে চলমান হোম সিরিজ মিস করেছেন ডানহাতি এ ফাস্ট বোলার। আগামী মাসে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরেও তার খেলা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। টেস্ট সিরিজে তাকে পাওয়া নিয়ে সংশয় জেগেছে। কারণ রিহ্যাবের মাধ্যমে সুস্থ হতে ৪ থেকে ৬ সপ্তাহ লাগবে তাসকিনের। এই প্রক্রিয়া শুরু হবে ২০ মের পর। বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী এ তথ্য জানিয়েছেন।

আজ সোমবার তিনি বলেন, ‘আগামী চার সপ্তাহের জন্য কনজারভেটিভ ম্যানেজমেন্টে রিহ্যাব হবে, আমরা দেখতে চাচ্ছি কী হয়। পুরো সিরিজটা মিস করবে কি না, তা এখনো নিশ্চিত নয়। সিরিজের এক মাস আগে আমরা বলতে পারি না সে এই সিরিজ থেকে ছিটকে গিয়েছে কি না। জুনের প্রথম সপ্তাহে দল দেশ ছাড়বে। তখন হয়তো সীমিত ওভারের ম্যাচের জন্য আমরা তার অন্তর্ভুক্তির কথা ভাববো।’

debashis chowdhuryবিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী

ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে দুই টেস্ট, তিনটি করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেলতে বাংলাদেশ দল আগামী ৬ জুন দেশ ছাড়বে।

তাসকিন যত দ্রুত সম্ভব মাঠে ফিরতে চান। উইন্ডিজ সফরে তার যাওয়াটা নির্ভর করছে কাঁধের চোটের উন্নতির ওপর। এ তরুণ পেসার সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, ‘আমার মনে হয়, কখন ফিরব সেটা অনুমান করার সময় এখনো হয়নি। কারণ সবকিছু নির্ভর করবে আমার উন্নতির ওপর। কিন্তু যত দ্রুত সম্ভব মাঠে নামতে চাই আমি।’

ক্যারিবিয়ানে আগামী জুনেই হবে দুই টেস্ট। জুলাইয়ে হবে সীমিত ওভারের সিরিজ। তাই সুস্থ হতে পারলে তাসকিন হয়তো টি-টোয়েন্টি, ওয়ানডেই খেলতে পারবেন।