advertisement
আপনি পড়ছেন

নির্জলা ব্যাটিং উইকেট। টানা পাঁচদিনই সাগরিকার উইকেট এমনটা প্রমাণ দিয়ে গেছে। বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা প্রথম টেস্টের ফলাফল তাই ড্র। চট্টগ্রাম টেস্টের এমন ফলাফল নাকি আগেই অনুমান করে রেখেছিল শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল!

bd sri lanka test drawnড্র শেষে দুই দল

উইকেট দেখেই অতিথি দল নিশ্চিত ছিল জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ড্রই ম্যাচের অনুমিত গন্তব্য। এমন কিছু হবে আগেই জানতেন শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটার ধনঞ্জয়া ডি সিলভা। আজ বৃহস্পতিবার ম্যাচ ড্র হওয়ার পর সংবাদ সম্মেলনে এমন মন্তব্য করেছেন তিনি।

ম্যাচ ড্র হওয়ায় খুশি কি না- এমন প্রশ্নে ধনঞ্জয়া আজ বলেন, ‘নিশ্চিতভাবেই এটা ড্র হতে যাচ্ছিল। আমরা এটা প্রথম দিন থেকেই জানতাম, যখন তারা (বাংলাদেশ) ব্যাটিং করছিল তখনও। বাংলাদেশের জয়ের ক্ষীণ সম্ভাবনা ছিল কিন্তু উইকেটে বোলারদের জন্য কিছু ছিল না। আমরা ড্র নিয়ে খুব খুশি।’

ctg test drawnবাংলাদেশ দল

পঞ্চম দিনের সকালে ব্যাটিং এসে খালেদ-নাঈমদের আক্রমণ করেছেন কুশল মেন্ডিস। ৪৩ বলে ৪৮ রান (৮ চার, ১ ছয়) করেছেন তিনি। তারপরও তাইজুলের ঘূর্ণিতে চাপে পড়েছিল লঙ্কানরা। জয়ের সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল বাংলাদেশের। যদিও ধনঞ্জয়া মনে করেন, কুশলের ইনিংসটা বড় হলে উল্টো জয়ের সুযোগ আসতো লঙ্কানদের।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘এভাবেই সে (কুশল) খেলে থাকে। সে প্রকৃতি প্রদত্ত খেলোয়াড়, যে কিনা ভালো টাইমিং করতে পারে। সে দ্রুত রান করতে চায়। যদি সে অপরাজিত ৭৫ বা ৮০ রান করতো, আমাদের হয়তো জয়ের একটা সুযোগ তৈরি হতো।’

বাংলাদেশের বর্তমান দলটা বেশ ভারসাম্যপূর্ণ। অভিজ্ঞ ক্রিকেটাররা আছেন। পেস আক্রমণটা একটু দুর্বল অবশ্য। ধনঞ্জয়া বলেছেন, এই দলটা ভবিষ্যতে জয় পাবে টেস্টে।

ম্যাচের পর দুই দলের তুলনা করতে গিয়ে ৩০ বছর বয়সী লঙ্কান অলরাউন্ডার বলেন, ‘বাংলাদেশের কয়েকজন অভিজ্ঞ খেলোয়াড় আছে যেমন সাকিব, মুশফিক, মুমিনুল, তামিম এবং তাইজুল। তারা অনেক ক্রিকেট খেলেছে। তারা উন্নতি করছে এবং প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক ক্রিকেট খেলছে। ভবিষ্যতে তারা ম্যাচ জয়ের সুযোগ পাবে।’