advertisement
আপনি পড়ছেন

ওয়েস্ট ইন্ডিজের মাটিতে বরাবরই টেস্টে ধুঁকেছে বাংলাদেশ দল। ক্যারিবিয়ানদের দাপটের সঙ্গে পেরে ওঠেনি টাইগাররা। দল যখন ম্যাচের চাহিদা অনুযায়ী পারফর্ম করে না, তখন প্রতিপক্ষ চড়ে বসবেই। সেন্ট লুসিয়া টেস্টেও বাংলাদেশের জন্য তাই হচ্ছে।

rasel domingo 4রাসেল ডোমিঙ্গো

দ্বিতীয় দিন শেষে ওয়েস্ট ইন্ডিজের লিড ১০৬ রান। কাইল মেয়ার্সের সেঞ্চুরিতে প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেটে ৩৪০ রান করেছে স্বাগতিকরা। বাংলাদেশের হেড কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো বলছেন, উইন্ডিজরা এখন বাংলাদেশ দলকে শাস্তি দিচ্ছে। টাইগারদের ব্যাটিং, বোলিং দুই বিভাগকেই কাঠগড়ায় তুলেছেন তিনি।

দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে এই প্রোটিয়া কোচ বলেছেন, ‘ওরা আমাদের বিপক্ষে প্রায় ৪০০ রান তাড়া করেছিল চট্টগ্রামে। মেয়ার্স ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন সেদিন। অথচ আমরা এ ধরনের ইনিংস পাচ্ছি না। টেস্ট ক্রিকেট কঠিন। যখন আপনি যতটা দীর্ঘ সময় ব্যাট করা উচিত, ততটা করছেন না, তখন ভালো দল আপনাকে শাস্তি দেবে। এখন আমাদের ওরা শাস্তিই দিচ্ছে।’

kyle mayersকাইল মেয়ার্স

সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে বাংলাদেশের ব্যাটিং, বোলিং নিয়ে অসন্তুষ্ট ডোমিঙ্গো। পারফরম্যান্স নিয়ে তিনি বলেন, ‘না, ভালো হয়নি। ব্যাটিং ও বোলিং নিয়ে কঠিন প্রশ্ন তোলার আছে। কারণ এটা ২৩০ এর উইকেট না। ওয়েস্ট ইন্ডিজ আমাদের দেখিয়ে দিচ্ছে কেনো ওরা এই সংস্করণে আমাদের থেকে ভালো দল। ওদের একজন একশ রানে অপরাজিত আছে। ওদের সামনে বড় রান করার সুযোগ আছে। কারণ ওরা জুটি গড়তে সক্ষম হয়েছে, লম্বা সময় ব্যাটিং করেছে। ওরাই দেখাচ্ছে আমাদের কী করা উচিত।’

বাংলাদেশের ব্যাটিং লাইনে মেয়ার্সের মতো লম্বা সময় কেউ ব্যাটিং করতে পারছেন না। যা ম্যাচে পার্থক্য গড়ে দিচ্ছে। বাংলাদেশের হেড কোচ বলেন, ‘আমাদের দলের অনেক ক্রিকেটার ফর্ম খুঁজে বেড়াচ্ছে, রানের পেছনে ছুটছে। এই অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসার একটাই উপায়, লম্বা সময় ব্যাট করা। অনেক ৩০, ৪০ রানের ইনিংস হচ্ছে। কেউ কেউ ৫০ রান করছে। কাইল মেয়ার্স যা করছে সেটা কেউই করছে না। এটাই ২৩০ আর ৪০০ রানের মধ্যে পার্থক্য। আমাদের ওর মতো ১২০ রানের ইনিংস খেলতে হবে।’